বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > জাতীয় সড়কে জমি অধিগ্রহণে ১০০ কোটি টাকা নয়-ছয়! তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের
কলকাতা হাইকোর্ট। (ফাইল ছবি, সৌজন্য কলকাতা হাইকোর্ট)

জাতীয় সড়কে জমি অধিগ্রহণে ১০০ কোটি টাকা নয়-ছয়! তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

তদন্ত করার জন্য পুলিশকে দু'মাসের সময় সময় বেঁধে দিয়েছে হাইকোর্ট।

জাতীয় সড়কের জমি অধিগ্রহণ নিয়ে বড়সড় দূর্নীতির অভিযোগ উঠল। প্রায় ১০০ কোটি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ উঠেছে। এমন অভিযোগ পাওয়ার পরেই ক্ষুব্ধ কলকাতা হাইকোর্ট। এই ঘটনায় চার আধিকারিকের বিরুদ্ধে আলিপুরদুয়ার থানার পুলিশকে মামলা রুজু করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি রাজশেখর মান্থা। তদন্ত করার জন্য পুলিশকে দু'মাসের সময় সময় বেঁধে দিয়েছে হাইকোর্ট। তদন্ত শেষ হলেই কলকাতা হাইকোর্টে রিপোর্ট জমা দিতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

জাতীয় সড়কের জন্য জমি অধিগ্রহণে দুর্নীতির অভিযোগ প্রকাশ্যে আসে আলিপুরদুয়ারের সবিতা রায় নামে এক জমিদাতার অভিযোগের ভিত্তিতে। তার জমি অধিগ্রহণের জন্য ১৭ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা থাকলেও অসমের একটি ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে প্রথম পাঁচ লক্ষ টাকা জমা করা হয় এবং পরে সেই টাকা তুলে নেওয়া হয়। এই পরেই দুর্নীতির অভিযোগ প্রকাশ্যে আসে। তিনি জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানান। স্থানীয় থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে অভিযোগ নেওয়া হয়নি বলেও তিনি জানান। পরে তিনি কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

আদালত সূত্রে খবর, জাতীয় সড়ক বিভাগের জলপাইগুড়ির দায়িত্বে থাকা প্রজেক্ট ডিরেক্টর সঞ্জীব শর্মা, অধিগ্রহণের দায়িত্বে থাকা রাজ্য সরকারের অতিরিক্ত ভূমি আধিকারিক দাওয়া তেশরিং দুপকা, জাতীয় সড়কের ম্যানেজার শৈলেন্দ্র শম্ভু সহ আরও এক আধিকারিকের বিরুদ্ধে দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার অভিযোগ ওঠে। যদিও রাজ্যের পক্ষ থেকে আদালতে জানান হয় যে জমিদাতা তার প্রাপ্য টাকা পেয়ে গিয়েছেন। কিন্তু, দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় তা নিয়ে তদন্ত প্রয়োজন রয়েছে বলেই মনে করেছে কলকাতা হাইকোর্ট।

বন্ধ করুন