বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Illegal construction: ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আরও একটি বেআইনি নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

Illegal construction: ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আরও একটি বেআইনি নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

অবৈধ নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অমৃতা সিনহা।

কলকাতা পুরসভার একবালপুর এলাকার ৭৭ নম্বর ওয়ার্ডে ওই বেআইনি বাড়িটি অবস্থিত। এই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি অমৃতা সিংহ বাড়িটিকে ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে ভেঙে ফেলতে বলেছেন। একইসঙ্গে বেআইনি নির্মাণ ভাঙার কাজে যাতে কোনও বাধার সৃষ্টি না হয় তার জন্য প্রয়োজনে পুলিশের সাহায্য নিতে বলেছেন কলকাতা পুরসভাকে।

বেআইনি নির্মাণ নিয়ে বরাবরই কড়া মনোভাব দেখিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় হাওড়ার লিলুয়া একটি বেআইনি নির্মাণ ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আরও একটি বেআইনি নির্মাণ নিয়ে কড়া মনোভাব দেখাল কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি অমৃতা সিংহ কলকাতায় একটি বেআইনি নির্মাণ ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিলেন।

আরও পড়ুন: ‘আমার বাড়িও যদি বেআইনি হয় তাহলে ভেঙে ফেলতে হবে’-বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়

মামলা সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতা পুরসভার একবালপুর এলাকার ৭৭ নম্বর ওয়ার্ডে ওই বেআইনি বাড়িটি অবস্থিত। এই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি অমৃতা সিংহ বাড়িটিকে ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে ভেঙে ফেলতে বলেছেন। একইসঙ্গে বেআইনি নির্মাণ ভাঙার কাজে যাতে কোনও বাধার সৃষ্টি না হয় তার জন্য প্রয়োজনে পুলিশের সাহায্য নিতে বলেছেন কলকাতা পুরসভাকে। এরজন্য বন্দর এলাকার ডেপুটি পুলিশ কমিশনার যাতে প্রয়োজনীয় পুলিশবাহিনী দেন সে বিষয়েও নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।  

এর আগের দিন বৃহস্পতিবার বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় হাওড়ার লিলুয়ায় বালি পুরসভার অধীনে যে বেআইনি নির্মাণ ভেঙে ফেলতে বলেছিলেন সেই মামলাটি আগে উঠেছিল বিচারপতি অমৃতা সিংহের একক বেঞ্চে। সেই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি অমৃতা সিংহ অবৈধ নির্মাণটি ভেঙে দিতে বলেছিলেন। পরে নির্মাণ সংস্থা সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হয়। তখন বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিচারপতি রাই চট্টোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চও সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশ বহাল রাখে। তবে সেই অবধি নির্মাণ ভাঙতে গিয়ে বাধার মুখে পড়েন পুরসভার কর্মীরা। তখন পুরসভা আবার পুলিশের সাহায্য চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়। বৃহস্পতিবার সেই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন, আগামী ২৯ নভেম্বরের মধ্যে ২৯৫ স্কোয়ার মিটারের ওই বেআইনি নির্মাণটি ভেঙে ফেলতে হবে। তাতে কেউ বাধা দিলে লিলুয়া থানার পুলিশকে তাকে গ্রেফতার করবে।

সেই সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন, একটিও বেআইনি নির্মাণ বরদাস্ত করা হবে না। শুধু তাই নয়, বেআইনি নির্মাণ নিয়ে কড়া মনোভাব বোঝাতে গিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘আমার বাড়িটি যদি বেআইনি নির্মাণ হয়, তাহলে সেই বাড়িটিও ভেঙে ফেলতে হবে।’ উল্লেখ্য গত কয়েক মাস ধরেই কলকাতা, বিধাননগর সহ একাধিক এলাকায় বেআইনি নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। সেক্ষেত্রে প্রয়োজনে বেআইনি নির্মাণ ভাঙার জন্য বুলডোজার ব্যবহার করারও পরামর্শ দিয়েছে রাজ্যের উচ্চ আদালত।

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

ই-মেলে নয়, ডাকযোগে রাষ্ট্রপতির কাছে ইস্তফাপত্র পাঠালেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় সলমনের জন্যই নাকি ‘নিউ ইয়র্ক’ করতে রাজি হন ক্যাটরিনা! এতদিনে ফাঁস হল বড় সিক্রেট স্প্যাম কল, প্রতারণার চেষ্টায় জীবন দুর্বিসহ? রিপোর্ট করুন সরকারের চক্ষু পোর্টালে তাপমাত্রায় রোলার-কোস্টার রাইড! বৃষ্টির সম্ভাবনা কি আছে? জানুন আবহাওয়ার খবর ইতিহাস গড়ে প্যারিস অলিম্পিক্সের যোগ্যতা অর্জন করল ভারতের পুরষ ও মহিলা টিটি দল শেষ দিনে জেলা বিচারকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের আর্জি বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের সিভিক ভলান্টিয়াররা এপ্রিল মাস থেকেই বর্ধিত বেতন পাবেন, জারি হয়েছে বিজ্ঞপ্তি ‘আপনাকে দেখার পর তো আরও পছন্দ নয়!’ শিল্পীর সুন্দরী বউকে একী বলে বসলেন সৌরভ! হেলিকপ্টারে করে বিলাসপুর যাবেন দ্রাবিড় ও রোহিত! দুপুরে শুরু ভারতের অনুশীলন লেগস্পিনকে গুগলি বানাল DRS! বল লাগল স্টাম্পে, প্রযুক্তির ‘ভুলে’ রেগে লাল UP কোচ

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.