বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > নিউ টাউনে বেপরোয়া গতিতে দুর্ঘটনা, লাইটপোস্টে ধাক্কা মেরে আগুন গাড়িতে
গাড়ি গিয়ে ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে লাইটপোস্টে ধাক্কা খেয়ে উলটে যায়। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
গাড়ি গিয়ে ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে লাইটপোস্টে ধাক্কা খেয়ে উলটে যায়। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

নিউ টাউনে বেপরোয়া গতিতে দুর্ঘটনা, লাইটপোস্টে ধাক্কা মেরে আগুন গাড়িতে

গাড়ি গিয়ে ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে লাইটপোস্টে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়।

সরস্বতী পুজোর ভোররাতে নিউ টাউনের সাপুরজি এলাকায় পথ দুর্ঘটনা ঘটল। গাড়ি গিয়ে ডিভাইডারে ধাক্কা মেরে লাইটপোস্টে ধাক্কা খেয়ে উলটে যায়। এরপরই আগুন ধরে যায় গাড়িতে। ওই গাড়িতে পাঁচজন যাত্রী ছিল বলে পুলিশ সূত্রে খবর। যদিও দুর্ঘটনার পর তাঁদের খোঁজ পাওয়া যায়নি। খবর পেয়ে দ্রুত পৌঁছয় দমকল। তারপর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। নিখোঁজ যাত্রীদের খোঁজ চালাচ্ছে টেকনোসিটি থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, গাড়িতে থাকা পাঁচজন যাত্রী মদ্যপ অবস্থায় ছিল। যদিও দুর্ঘটনার পর তাঁদের কোনও খোঁজ মেলেনি। সম্ভবত তাঁরা গাড়ি ফেলে পালিয়েছেন। তবে এই কাণ্ডের খোঁজখবর শুরু করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নিউ টাউন সাপুরজি এলাকায় একটি চার চাকা গাড়ি বেপরোয়াভাবে প্রথমে ডিভাইডারে ধাক্কা মারে। তারপর লাইটপোস্টে ধাক্কা মারতেই তৎক্ষণাৎ গাড়িতে আগুন লেগে যায়।

এই ঘটনায় পুলিশের অনুমান, মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চলছিল। কিন্তু তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেনি চালক। তার জেরেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। বাকিরাও মদ্যপ অবস্থায় ছিল বলে অনুমান। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। কিন্তু এখন প্রশ্ন উঠছে, ওই এলাকায় পুলিশের টহল থাকে। এমনকী পুলিশ কিয়স্ক রয়েছে। তাহলে এই দুর্ঘটনা ঘটল এবং সবাই চলে গেল কীভাবে?‌ কারও কোনও খোঁজ নেই কেন?‌ সিসিটিভি ফুটেজ পরীক্ষা করা হয়নি কেন?‌ তাহলে কী পুলিশ ছিল না?

বন্ধ করুন