বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Cash Recovered From Kolkata: ২২-এর স্মৃতি উসকে ২৩-এর শুরুতেই টাকার পাহাড় উদ্ধার শহরে, অনুমান হাওয়ালা যোগের

Cash Recovered From Kolkata: ২২-এর স্মৃতি উসকে ২৩-এর শুরুতেই টাকার পাহাড় উদ্ধার শহরে, অনুমান হাওয়ালা যোগের

টাকার পাহাড় উদ্ধার শহরে

সোমবার কলকাতার বড়বাজার এলাকা থেকে এসটিএফ ও গোয়েন্দা বিভাগের যৌথ অভিযানে ৫৬ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় মোট ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ফের শহর থেকে উদ্ধার হল বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ। সোমবার কলকাতার বড়বাজার এলাকা থেকে এসটিএফ ও গোয়েন্দা বিভাগের যৌথ অভিযানে ৫৬ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় মোট ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া টাকার সঙ্গে হাওয়ালা যোগ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলে প্রাথমিক অনুমান তদন্তকারীদের। গতকাল সন্ধ্যায় প্রথমে মহাত্মা গান্ধী রোডের কাছে কপিলচরণ বেহারা নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়েই কালিচরণকে আটক করা হয়েছিল। আটক ব্যক্তির কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছিল ১২ লক্ষ টাকা। টাকার উৎস সম্পর্কে অবশ্য সঠিক জবাব দিতে পারেনি কালিচরণ। এরপর কালিচরণকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করে রবীন্দ্র সরণিতে অবস্থিত এক অফিসের খোঁজ পায় পুলিশ।

জানা গিয়েছে সব মিলিয়ে মোট ৫৬ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয় গতকাল। রবীন্দ্র শরণির অফিস থেকে প্রথমে ১৬ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়। সেখানেও টাকা উৎস সম্পর্কে সদুত্তর দিতে পারেনি কেউ। অফিসে সেই সময় উপস্থিত ছিলেন মালিক গৌরব প্রজাপতি এবং চিরাগ রমেশভাই প্রজাপতি। তাছাড়া আরও তিনজন সেখানে ছিলেন। সেই পাঁচজনকেই এরপর আটক করে জেরা করা হয়। আটক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও বেশ কয়েক জায়গায় হানা দেয় গুন্ডাদমন শাখা এবং এসটিএফ। সেখান থেকে থেকে আরও প্রায় ২৮ লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয় বলে জানা গিয়েছে।

ধৃতদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ধারা নং ৩৭৯-এ মামলা রুজু করা হয়েছে বড়বাজার থানায়। ধৃত ব্যক্তিদের কাছে এত টাকা এল কী ভাবে এল, তা খতিয়ে দেখতে জেরা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। কোথা থেকে এই বিপুল পরিমাণ টাকা এল, এবং কার কাছে তা যেত, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কত কয়েকদিন ধরেই তাদের কাছে খবর ছিল যে হাওয়ালা মারফত বিপুল পরিমাণ টাকা শহরে প্রবেশ করেছে। সেই মতো এই অর্থ বাজেয়াপ্ত করতেই পরিকল্পনা করে তল্লাশি চালিয়েছিল পুলিশ। উল্লেখ্য, এর আগে গতবছর একাধিকবার বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ উদ্ধারের ঘটনার সাক্ষী থেকেছে বঙ্গবাসী। তা সে অর্পিতার ফ্ল্যাট হোক কি উল্টোডাঙার ব্যবসায়ী, মালদার মৎস্য ব্যবসায়ী হোক কি কাউন্সিলর, কোটি কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে গতবছর। এবছরের শুরুতেও টাকা উদ্ধারের ধারাবাহিকতা বজায় থাকল।

 

বন্ধ করুন