বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আবার অনুব্রত মণ্ডলকে তলব করল সিবিআই, ভোট পরবর্তী হিংসায় ডাক
অনুব্রত মণ্ডল।

আবার অনুব্রত মণ্ডলকে তলব করল সিবিআই, ভোট পরবর্তী হিংসায় ডাক

  • গরু পাচারকাণ্ডে সিবিআই জেরার পর দেড় মাস বাদে বোলপুরের বাড়িতে ফিরেছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। রবিবার নিজেকে ঘরেই আটকে রাখলেন। তিনি বাড়ির বাইরে বিশেষ বেরোচ্ছেন না। তাঁর বাড়ির বাইরে নেতা–কর্মীদের ভিড় অনেকটাই কমেছে। কারণ তিনি এখন সবার সঙ্গে কথা বলছেন না।

আবার তলব করা হল অনুব্রত মণ্ডলকে। তবে এবার গরু পাচার কাণ্ডের ঘটনায় নয়। এবার ভোট পরবর্তী হিংসা মামলা তাঁকে তলব করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। বীরভূমের তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল সিবিআইয়ের ডাকে একবার সাড়া দিয়েছেন। আগামীকাল, মঙ্গলবার তাঁকে সিবিআই দফতরে হাজির হতে বলা হয়েছে। সেখানে তিনি কখন যান সেটাই দেখার।

কখন আসতে হবে অনুব্রতকে?‌ সম্প্রতি গরু পাচার মামলায় সিবিআই অফিসাররা নিজাম প্যালেসে অনুব্রত মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। সেই জেরা–পর্ব মিটিয়ে এসএসকেএম, তারপর সেখান থেকে তিনি বীরভূমের বাড়ি ফিরে যান। আর ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় আগে দু’বার বীরভূমের তৃণমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতিকে তলব করা হলেও তিনি হাজিরা দেননি। মঙ্গলবার দুপুর ১টার সময় সিজিও কমপ্লেক্সে তলব করে তাঁকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

কেমন আছেন অনুব্রত মণ্ডল?‌ গরু পাচারকাণ্ডে সিবিআই জেরার পর দেড় মাস বাদে বোলপুরের বাড়িতে ফিরেছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। রবিবার নিজেকে ঘরেই আটকে রাখলেন। তিনি বাড়ির বাইরে বিশেষ বেরোচ্ছেন না। তাঁর বাড়ির বাইরে নেতা–কর্মীদের ভিড় অনেকটাই কমেছে। কারণ তিনি এখন সবার সঙ্গে কথা বলছেন না।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটেছিল?‌ সিবিআই সূত্রে খবর, গরুপাচার মামলায় এনামুল হককে গ্রেফতার করতেই উঠে আসে অনুব্রত মণ্ডলের নাম। ২০২১ সালের এপ্রিল মাসে প্রথমবার অনুব্রত মণ্ডলকে নোটিশ পাঠানোর পর, গত ১৩ মাসে তদন্তে একাধিক তথ্য উঠে এসেছে। আর ২০২২ সালের ১৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৫ মার্চ, ৬ ও ২৪ এপ্রিল, মোট ৬ বার নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। শারীরিক অসুস্থতার জন্য হাজিরা এড়িয়ে যান অনুব্রত।

বন্ধ করুন