বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > টাকা নিয়ে রসিদ দিতেন না মানিক, CBI-কে জানিয়ে এলেন তাপস মণ্ডল

টাকা নিয়ে রসিদ দিতেন না মানিক, CBI-কে জানিয়ে এলেন তাপস মণ্ডল

তাপস মণ্ডল।

প্রায় ৩ ঘণ্টা জেরার পর বেরিয়ে তাপস মণ্ডল বলেন, ‘ইডিকে যা বলেছিলাম সিবিআইকেও তাই বলেছি। মানিক ভট্টাচার্য অফলাইন রেজিস্ট্রেশনের জন্য ছাত্র পিছু ৫,০০০ টাকা করে নিতেন। ডিএলএড প্রতিষ্ঠানগুলির সংগঠনের প্রধান হিসাবে সেই টাকা আমি মানিকবাবুকে তুলে দিতাম। কিন্তু তিনি কোনও দিন কেনও রসিদ দেননি।

প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় মঙ্গলবার মানিক ভট্টাচার্য ঘনিষ্ঠ তাপস মণ্ডলকে প্রথমবার জেরা করল সিবিআই। এদিন সিবিআইয়ের কাছে বিস্ফোরক দাবি করেন তাপসবাবু। তিনি বলেন, ‘টাকা নিলেও রসিদ দিতেন না মানিক ভট্টাচার্য।’ সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘ইডিকে যা বলেছিলাম সিবিআইকে তাইই বলেছি।’

এদিন সকালে সিজিও কমপ্লেক্সে সিবিআইয়ের দফতরে পৌঁছন তাপসবাবু। ঢোকার সময় তিনি বলেন, সিবিআই আমাকে দেখা করতে বলেছিল। আমি চিকিৎসার জন্য চেন্নাইয়ে ছিলাম। ফিরে তাদের জানাই। তারা মঙ্গলবার আমাকে দেখা করতে বলেন।

প্রায় ৩ ঘণ্টা জেরার পর বেরিয়ে তাপস মণ্ডল বলেন, ‘ইডিকে যা বলেছিলাম সিবিআইকেও তাই বলেছি। মানিক ভট্টাচার্য অফলাইন রেজিস্ট্রেশনের জন্য ছাত্র পিছু ৫,০০০ টাকা করে নিতেন। ডিএলএড প্রতিষ্ঠানগুলির সংগঠনের প্রধান হিসাবে সেই টাকা আমি মানিকবাবুকে তুলে দিতাম। কিন্তু তিনি কোনও দিন কেনও রসিদ দেননি। তবে আমাদের কাজ হয়ে যেত। ফলে কখনও এই নিয়ে কোনও প্রশ্ন ওঠেনি। এখন সংসদ অফলাইন ভর্তির জন্য ৩০০০ টাকা করে নিচ্ছে। তারা বলেছে রসিদ দেবে।’

তিনি বলেন, ‘আমার কাছে যে ২১ কোটি টাকার হিসাব চাওয়া হয়েছিল তা আমি মিটিয়ে দিয়েছি।’ বলে রাখি, প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতিতে ৫ বার ইডির জেরার মুখোমুখি হয়েছেন তাপস মণ্ডল। তার বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করেছে ইডি। তাতে দাবি করা হয়েছে, মানিকের সঙ্গে চক্রান্তের অংশ ছিলেন তিনিও। সূত্রের খবর, এই দুর্নীতিতে মানিক ভট্টাচার্যকে জেরা করতে চায় সিবিআই। তার আগে তথ্য হাতে পেতে তাপসকে জেরা বলে মনে করা হচ্ছে।

 

বন্ধ করুন