বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অপরাধ তথ্য পাঠায়নি বাংলা, অভিযোগ কেন্দ্রের, ২ মাস আগেই পাঠানোর দাবি রাজ্যের
শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
শিলিগুড়িতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

অপরাধ তথ্য পাঠায়নি বাংলা, অভিযোগ কেন্দ্রের, ২ মাস আগেই পাঠানোর দাবি রাজ্যের

  • একটি মহলের প্রশ্ন, ২০১৯ সালে রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। সেজন্যই কি নয়া তথ্য প্রকাশ করা হয়নি?

অপরাধের সংক্রান্ত তথ্য নিয়েও কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে শুরু হল চাপানউতোর। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের দাবি, 'ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরো'-র (এনসিআরবি) রিপোর্টের জন্য ২০১৯ সালের তথ্য দেয়নি পশ্চিমবঙ্গ। তাই ২০১৮ সালের পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়েছে। যদিও রাজ্যের দাবি, গত ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে যাবতীয় তথ্য পাঠানো হয়েছিল।

সূত্রের খবর, কেন্দ্রের কাছে অপরাধ সংক্রান্ত তথ্য পাঠিয়েছিল রাজ্য। তা নিয়ে কয়েকটি বিষয়ে জানতে চেয়েছিল এনসিআরবি। সেই মোতাবেক অগস্টের গোড়ার দিকে সেই ব্যাখ্যারও উত্তর দেওয়া হয়েছিল। তবে অন্য বছরের তুলনায় এবার কিছুটা তথ্য পাঠাতে দেরি হয়েছিল বলে একটি অংশের খবর।

একাংশের দাবি, সাধারণত প্রতি বছর মার্চ-এপ্রিলের মধ্যে বিভিন্ন জেলা থেকে রাজ্য ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর কাছে অপরাধ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য চলে আসে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জেরে এবার সেই প্রক্রিয়ায় কিছুটা বিলম্ব হলেও জুলাইয়ের মধ্যে কেন্দ্রের কাছে তথ্য পাঠানো হয়েছিল।

তবে একটি অংশের দাবি, ৩০ জুনের মধ্যে তথ্য পাঠানোর কথা ছিল। করোনার জেরে সেই সময়সীমা বাড়ানো হলেও তা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে রাজ্য। যদিও রাজ্যের প্রশাসনিক মহলের প্রশ্ন, তথ্য পাঠানোর পর দু'মাস সময় পেয়েও কেন তথ্য যোগ করেনি কেন্দ্র। আর যদি তথ্য না দেওয়ার অভিসন্ধি থাকে তাহলে ২০১৯ সালের দুর্ঘটনা এবং আত্মহত্যার সংক্রান্ত পরিসংখ্যানে কীভাবে পশ্চিমবঙ্গের সাম্প্রতিক তথ্য থাকল?

ওই মহলের বক্তব্য, সামনেই বিধানসভা ভোট। তার আগে ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। সেজন্যই কি নয়া তথ্য চেপে রেখেছে কেন্দ্র? সে বিষয়ে কেন্দ্রের তরফে অবশ্য কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

বন্ধ করুন