বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদে মুখ্যমন্ত্রীকে বসানো ঠিক হবে না, বিবৃতি বিশিষ্টজনেদের
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শিল্পী শুভাপ্রসন্ন (ফাইল ছবি)

বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদে মুখ্যমন্ত্রীকে বসানো ঠিক হবে না, বিবৃতি বিশিষ্টজনেদের

  • আগামী সোমবারই রাজ্য মন্ত্রিসভায় এনিয়ে বিল আসতে পারে। তবে তার আগেই এই উদ্যোগের বিরোধিতা করলেন বিশিষ্টজনেদের একাংশ। তবে শুধু মুখ্যমন্ত্রী নন, রাজ্যপাল ও প্রধানমন্ত্রী যখন এই পদে বসা নিয়েও বিরোধিতা করেছেন বিশিষ্টজনেরা। কিন্তু এই পদে কে বসবেন?

মুখ্যমন্ত্রীকে আচার্য করার উদ্যোগ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। মূলত রাজ্যের পরিচালনাধীন বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে মুখ্যমন্ত্রীকেই আচার্য পদে বসানোর জন্য তৎপরতা শুরু হয়েছে। এনিয়ে রাজ্য জুড়েই সমালোচনার ঝড়। তবে তাৎপর্যপূর্ণভাবে এবার এনিয়ে মুখ খুললেন বিশিষ্টজনেরা। সূত্রের খবর বিশিষ্টজনেদের স্বাক্ষর সম্বলিত একটি বিবৃতি সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য হিসাবে মুখ্যমন্ত্রী নন, কোনও শিক্ষাবিদকে বসানোর ব্যাপারেই সওয়াল করা হয়েছে বিশিষ্টজনের পক্ষ থেকে।

সূত্রের খবর, বিশিষ্টজনেদের সই সম্বলিত একটি চিঠি প্রকাশ্যে এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদে মুখ্য়মন্ত্রীকে বসানোর উদ্যোগের বিরোধিতা করেছেন বিশিষ্টজনেদের একাংশ। তাঁদের মতে শিক্ষাবিদকে বসানো হোক এই পদে। রাজনৈতিক বা প্রশাসনিক প্রধান আচার্য হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বাধীকার ভঙ্গ হতে পারে। এই বিবৃতিতে বিভাস চক্রবর্তী, কৌশিক সেন, সমীর আইচ, অনীক দত্ত প্রমুখের সই রয়েছে বলে সূত্রের খবর। 

এদিকে আগামী সোমবারই রাজ্য মন্ত্রিসভায় এনিয়ে বিল আসতে পারে। তবে তার আগেই এই উদ্যোগের বিরোধিতা করলেন বিশিষ্টজনেদের একাংশ। তবে শুধু মুখ্যমন্ত্রী নন, রাজ্যপাল ও প্রধানমন্ত্রীর এই পদে বসা নিয়েও বিরোধিতা করেছেন বিশিষ্টজনেরা। তাঁদের মতে এর মাধ্যমে স্বাধীকার ভঙ্গ হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত এই বিবৃতিতে আদৌ কতটা কাজ হবে তা নিয়ে প্রশ্নটা থেকেই গিয়েছে।   

বন্ধ করুন