বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Mamata Banerjee: ‘‌প্ল্যানিং কমিশন তৈরি করেছিলেন নেতাজি, এখন শুধুই নন–প্ল্যানিং’‌, তোপ মমতার

Mamata Banerjee: ‘‌প্ল্যানিং কমিশন তৈরি করেছিলেন নেতাজি, এখন শুধুই নন–প্ল্যানিং’‌, তোপ মমতার

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ANI)

নেতাজি চাইতেন কৃষকরা আত্মনির্ভর হোক। স্কুলের পোশাক এখন তাঁতিরা বানায়। স্বরাজ দ্বীপ, শহিদ দ্বীপের আজ কেউ নামকরণ করেননি। নেতাজি যখন আন্দামান গিয়েছিলেন তখনই নামকরণ হয়েছে। নেতাজি তৈরি করেছিলেন প্ল্যানিং কমিশন। এখন নেই প্ল্যানিং, শুধুই নন–প্ল্যানিং। প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন মু্খ্যমন্ত্রী।

আজ, ২৩ জানুয়ারি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৭তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে কলকাতা, নয়াদিল্লি–সহ দেশজুড়ে নানা অনুষ্ঠান চলছে। আজ, সোমবার ১২টায় ধর্মতলায় নেতাজি মূর্তিতে মাল্যদান করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে মাল্যদান করতে যান বামফ্রন্ট নেতৃত্বও। ওই মঞ্চ থেকেই নাম না করেই দ্বীপের নামকরণ বিতর্কে প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন মু্খ্যমন্ত্রী।

এদিন রেড রোডে নেতাজির প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌নেতাজি চাইতেন কৃষকরা আত্মনির্ভর হোক। স্কুলের পোশাক এখন তাঁতিরা বানায়। স্বরাজ দ্বীপ, শহিদ দ্বীপের আজ কেউ নামকরণ করেননি। নেতাজি যখন আন্দামান গিয়েছিলেন তখনই নামকরণ হয়েছে। নেতাজি তৈরি করেছিলেন প্ল্যানিং কমিশন। এখন নেই প্ল্যানিং, শুধুই নন–প্ল্যানিং। নেতাজির তৈরি প্ল্যানিং কমিশনটাই তুলে দিয়েছে।’‌

এদিকে নেতাজিকে নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে বলে কেন্দ্রীয় সরকারকে তুলোধনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ‘‌নেতাজি চাইতেন কৃষকরা আত্মনির্ভর হন। তাই সুফল বাংলার উদ্বোধন আজকের দিনে। নেতাজি ভাবতেন, আমাদের চাষির ঘর থেকে সুতো তৈরি হোক। বাইরে থেকে কেনা হবে না। আত্মনির্ভর হওয়ার বার্তা। সরকারি স্কুলের ইউনিফর্ম এখন রাজ্যেই তাঁতিদের দিয়েই তৈরি করানো হয়। প্ল্যানিং কমিশন নেতাজি তৈরি করেছিলেন। এরা তুলে দিয়েছে। কেন্দ্রের প্ল্যানিং নেই, সবই নন–প্ল্যানিং। দেশের নেতাকে কারও কাছে সার্টিফিকেট নিতে হয় না। দেশের নেতা নেতাজি,গান্ধীজীর মতো হওয়া উচিত। শুধু ২৬ জনুয়ারি পতাকা তুলে দেশের নেতাদের স্মরণ করলে হবে না।’‌ এভাবেই কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

অন্যদিকে দিদির দূতদের গ্রামের মানুষ অভিযোগ জানাচ্ছেন। সেটাকে বিক্ষোভ বলছেন বিরোধী নেতারা। আজ তা নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। এই নিয়ে তোপ দেগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌রাস্তা দিয়ে গেলে মানুষ অভিযোগ জানাবে একে বিক্ষোভ বলবেন না। আজ দেশ বড় অসহায়। বাংলা কোনরকমে সামলাচ্ছি। আমরা আন্দোলন করে উঠে এসেছি বলে লড়তে পারি। অনেকে এজেন্সির ভয়ে পালিয়ে যায়। দেশটাকে অন্তত বিক্রি করে দেবেন না। আরশোলা কামড়ালে রাজ্যে কেন্দ্রীয় দল আসে। স্বাধীন ভারতের ইতিহাসকে বিকৃত না করে, সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে। সমালোচক বন্ধু থাকবেন না, এটা মনে করার কোনও কারণ নেই।’‌

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

বন্ধ করুন