বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Cabinet: রদবদল নাকি ভেঙে দিয়ে নয়া মন্ত্রিসভা?‌ বড় সিদ্ধান্তের পথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Cabinet: রদবদল নাকি ভেঙে দিয়ে নয়া মন্ত্রিসভা?‌ বড় সিদ্ধান্তের পথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

  • দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়া মন্ত্রীদের পুরনায় মন্ত্রী না করার দাবি তুলেছিলেন স্বয়ং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, দল সেই প্রস্তাবকে সমর্থন না করলে ২০১৬ সালে সরকারের শপথগ্রহণে অংশ নেননি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও এই নিয়ে তাঁর মুখে কখনও কিছু শোনা যায়নি।

দলের মহাসচিব। মন্ত্রিসভায় শিল্প–বাণিজ্যমন্ত্রী। বিধানসভায় পরিষদীয়মন্ত্রী। আর তিনিই ইডি’‌র হাতে গ্রেফতার। তাও স্কুল সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ দুর্নীতিতে। আর তখন থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে আওয়াজ উঠতে শুরু করেছে, মন্ত্রিসভা থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে দেওয়া হোক। দলের পদ থেকেও সরানো হোক। না হলে ভাবমূর্তি নষ্ট হবে। নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করে ফিরলে তখন আবার ভাবা যাবে। এই প্রস্তাব পৌঁছছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কানেও। তিনি বড় কোনও সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন বলে সূত্রের খবর।

ঠিক কী প্রস্তাব পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে দুটি প্রস্তাব এসেছে বলে সূত্রের খবর। এক, নতুন শিল্পমন্ত্রী করা হোক বাবুল সুপ্রিয়কে। দুই, গোটা মন্ত্রিসভা ভেঙে দিয়ে নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হোক। মন্ত্রিসভা ঢেলে সাজানোর দাবি তুলতে শুরু করেছেন দলের অন্দরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামী হিসাবে পরিচিতরা। কারণ তাতে স্বচ্ছতা থাকবে। আর কেন্দ্রীয় সরকার ইডি–সিবি আইকে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করতে পারবে না।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ জানা গিয়েছে, দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়া মন্ত্রীদের পুরনায় মন্ত্রী না করার দাবি তুলেছিলেন স্বয়ং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, দল সেই প্রস্তাবকে সমর্থন না করলে ২০১৬ সালে সরকারের শপথগ্রহণে অংশ নেননি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও এই নিয়ে তাঁর মুখে কখনও কিছু শোনা যায়নি। পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেফতার হতেই অভিষেকের পুরনো প্রস্তাবকেই কয়েকজন শীর্ষনেতা তৃণমূল সুপ্রিমোর সামনে রেখেছেন।

কী সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য নেতা বলেন, ‘‌দল পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের পাশে থাকবে। তবে গ্রেফতার হওয়ায় অন্য বিধায়ককে শিল্পমন্ত্রী করা হবে। ওড়িশার মতো গোটা মন্ত্রিসভা ভেঙে নতুন করে গড়ে তোলা হবে কিনা তার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি। নেত্রী যদি এই সিদ্ধান্ত নেন তাতে সমর্থন থাকবে। তাঁর কাছে দুটি প্রস্তাব গিয়েছে শুনেছি। তবে এখনও তিনি কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেননি।’‌

বন্ধ করুন