বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘কবিগুরুর ‌নোবেল পুরষ্কার আজও উদ্ধার হয়নি’‌, ক্ষোভ উগরে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (HT_PRINT)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (HT_PRINT)

‘কবিগুরুর ‌নোবেল পুরষ্কার আজও উদ্ধার হয়নি’‌, ক্ষোভ উগরে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

  • আজ, ক্যাথিড্রাল রোডে রবীন্দ্রসদনে রাজ্যের পক্ষ থেকে কবিগুরুকে শ্রদ্ধা জানাতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ তা আয়োজন করেছিল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, ব্রাত্য বসু উপস্থিত ছিলেন। সেখানেই নোবেল চুরি নিয়ে একরাশ দুঃখপ্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তোপের মুখে পড়ল সিবিআই। কেটে গিয়েছে ১৮ বছর। কিন্তু চুরি যাওয়া নোবেলের খোঁজ মেলেনি। সিবিআই নোবেল উদ্ধার করতে পারেনি। আজ, সোমবার ২৫ বৈশাখ কবির জন্মদিনে নোবেল চুরি নিয়ে দুঃখপ্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্যাথিড্রাল রোডে রাজ্য সরকারের কবি প্রণাম অনুষ্ঠান থেকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের চুরি যাওয়া নোবেল উদ্ধার না হওয়ায় উষ্মাপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

ঠিক কী বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ আজ, সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌এখনও আমার দুঃখ হয়, তাঁর নোবেল পুরষ্কার আজও উদ্ধার হয়নি। এটা বামফ্রন্ট আমলের ঘটনা। তদন্তটা সিবিআইকে করতে দিয়েছিল। ওরা হয়তো কেসটা ক্লোজ করে দিয়েছে। এটা আমাদের বড় অসম্মান। বড় গায়ে লাগে। এত বড় একটা জিনিস প্রথম আমরা পেলাম। সেটা কেউ নিয়ে নিল। মনে রাখবেন একটা নোবেল পুরষ্কার চলে গেলেও রবীন্দ্রনাথকে ভোলা যায় না। নোবেল আমাদের মনে গেঁথে দিয়ে গিয়েছেন।’‌

আজ, ক্যাথিড্রাল রোডে রবীন্দ্রসদনে রাজ্যের পক্ষ থেকে কবিগুরুকে শ্রদ্ধা জানাতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ তা আয়োজন করেছিল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, ব্রাত্য বসু–সহ বহু বিশিষ্টজন উপস্থিত ছিলেন। সেখানেই নোবেল চুরি নিয়ে একরাশ দুঃখপ্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

আর কী বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ এদিন তিনি আরও বলেন, ‘‌রবীন্দ্রনাথকে কোনওদিন ভোলা যাবে না। কবিগুরু একজনই হন। কবিগুরু না থাকলে নবজাগরণ হতো না। বিশ্বকবির সৃষ্টিতে ঐক্যের বার্তা আছে। আমাদের তা মেনে চলতে হবে।’‌ নবান্ন সূত্রে খবর, নোবেল চুরির তদন্ত এবার সিআইডিকে দিয়ে করাতে চায় রাজ্য সরকার। তাই ফের কেন্দ্রকে চিঠি দেওয়ার ভাবনা রাজ্য সরকারের।

বন্ধ করুন