বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Coal Scam: ‘অভিষেকের বাবা-মায়ের নামে তিনটি ভুয়ো সংস্থার হদিশ মিলেছে, হয়েছে কোটি কোটির লেনদেন’, চাঞ্চল্যকর দাবি ED-র
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি. (PTI Photo) (PTI)

Coal Scam: ‘অভিষেকের বাবা-মায়ের নামে তিনটি ভুয়ো সংস্থার হদিশ মিলেছে, হয়েছে কোটি কোটির লেনদেন’, চাঞ্চল্যকর দাবি ED-র

  • সংস্থাগুলির নাম - লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস প্রাইভেট লিমিটেড, লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস ইনফ্রা কনসালট্যান্টস প্রাইভেট লিমিটেড এবং লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস এলএলপি। একসময় অভিষেকও এই সংস্থাগুলির একটির পরিচালক ছিলেন।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাবা এবং মায়ের নামে থাকা তিনটি ভুয়ো সংস্থার নাকি খোঁজ পেয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেট। সম্প্রতি এক মিডিয়া রিপোর্টে এমনই দাবি করা হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, এই সংস্থাগুলির মাধ্যমে কালো টাকা সাদা করা হত কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এই তিনটি সংস্থা সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য হাতে পেতে চাইছে ইডি।

তদন্তকারীদের দাবি, অভিষেকের মা লতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বাবা অমিত বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে দক্ষিণ কলকাতার নিউ আলিপুর এলাকায় অবস্থিত তিনটি সংস্থা রয়েছে। তিনটি সংস্থারই অফিস রয়েছে একই ঠিকানায় - পি-৭৩৩, ব্লক-পি, নিউ আলিপুর, কলকাতা- ৭০০০৫৩৷ সংস্থাগুলির নাম - লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস প্রাইভেট লিমিটেড, লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস ইনফ্রা কনসালট্যান্টস প্রাইভেট লিমিটেড এবং লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস এলএলপি। কেন্দ্রীয় কর্পোরেট বিষয়ক মন্ত্রকের অধীনে রেজিস্ট্রার অফ কোম্পানিজের রেকর্ড অনুসারে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস প্রাইভেট লিমিটেডের একজন পরিচালক ছিলেন। ২০১৪ সালে ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্র থেকে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দেওয়ার আগে পদত্যাগ করেছিলেন তিনি।

রিপোর্ট অনুযায়ী, গোয়েন্দারা দাবি করেছেন, অনুপ মাঁঝি ওরফে লালার সংস্থার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রায় ৪ কোটি ৩৭ লক্ষ টাকা অভিষেকের পরিবারের সদস্যদের নামে থাকা একটি সংস্থার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছিল৷ তবে, সেই টাকা এই তিন সংস্থার কোনও একটির অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে কি না, সেই বিষয়ে নির্দিষ্টভাবে এখনও কিছু জানা যায়নি৷ এই বিষয়ে তাই আরও তথ্য জোগাড় করার চেষ্টা করছেন ইডি আধিকারিকরা৷ এর আগে শুক্রবার দীর্ঘ সাড়ে ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় অভিষেককে। যদিও ‘তদন্তের স্বার্থে’ মুখ খুলতে চাননি অভিষেক। তবে এবার ইডির সূত্র মারফতই প্রকাশ্যে এল চাঞ্চল্যকর সব তথ্য।

বন্ধ করুন