বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সাদা-হলুদ পালটে নীল-সাদা, বিধানসভার বাইরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ছাউনির রং বদল
বিধানসভার সর্বদলীয় বৈঠক। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
বিধানসভার সর্বদলীয় বৈঠক। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

সাদা-হলুদ পালটে নীল-সাদা, বিধানসভার বাইরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ছাউনির রং বদল

সেটি প্রথমে সাদা ও হলুদ রঙে মোড়া থাকলেও পরে দেখা যায় সেটিকে নীল–সাদা রঙে মুড়ে ফেলা হয়।

‌স্পিকারের নির্দেশে বিধানসভার বাইরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিশ্রামের জন্য করা ছাউনি করার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। প্রথমে ছাউনির কাপড় সাদা ও হলুদ রঙের থাকলেও পরে সেই রং বদলে যায়। হয়ে যায় নীল–সাদা। কিন্তু কেন এই রং বদল? কারও কাছে কোনও উত্তর নেই। সবাই মুখে কুলুপ এঁটেছেন।

বিজেপি বিধায়কদের শপথ গ্রহণের দিন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বিধানসভায় এলে সাংবাদিকদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা বচসায় জড়িয়ে পড়েছিলেন। এরপরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ২ জুলাই থেকে বিধানসভা অধিবেশন শুরু হচ্ছে। এই অধিবেশনে সব বিজেপি বিধায়কদের সঙ্গেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা থাকছেন। সেই সব কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা যাতে বিধানসভার বাইরে বিশ্রাম নিতে পারেন, সেজন্য এই বিশেষ ছাউনির ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু সেটি প্রথমে সাদা ও হলুদ রঙে মোড়া থাকলেও পরে দেখা যায় সেটিকে নীল–সাদা রঙে মুড়ে ফেলা হয়। যদিও এই রঙ বদলের নির্দেশ বিধানসভার অধ্যক্ষের কিনা, সে বিষয়ে অবশ্য কিছু জানা যায়নি।|

উল্লেখ্য, রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর সব সরকারি প্রতিষ্ঠান, উড়ালপুলে নীল–সাদা রঙের ব্যবহার চোখে পড়ত। এবার অস্থায়ী ছাউনিও সেই রঙের আওতা থেকে বাদ গেল না। তবে বিমানসভার স্পিকারের নির্দেশে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা যে বসে থাকার ছাউনি পেয়েছেন, সেটাও তাৎপর্যপূর্ণ। এর আগে অবশ্য বিজেপি বিধায়করা স্পিকারের কাছে আবেদন করেছিলেন, তাঁদের নিরাপত্তায় থাকা কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বিধানসভায় প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হোক। কিন্তু তা খারিজ হয়ে যায়।

রিজ হয়ে যায়।

বন্ধ করুন