বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হাথরাসের ঘটনায় দেবীদুর্গার কাছে প্রায়শ্চিত্ত করা উচিত ছিল নরেন্দ্র মোদীর:‌ অধীর
অধীর চৌধুরী ও নরেন্দ্র মোদী
অধীর চৌধুরী ও নরেন্দ্র মোদী

হাথরাসের ঘটনায় দেবীদুর্গার কাছে প্রায়শ্চিত্ত করা উচিত ছিল নরেন্দ্র মোদীর:‌ অধীর

  • অধীর চৌধুরীর কথায়, ‘‌এত বছরে এত দিনে নরেন্দ্র মোদী কখনও বাংলার দুর্গাপুজো উদ্বোধন করেননি। সামনে ভোট। তাই তাঁকে নাটক করতে হবে। ‌নরেন্দ্র মোদী আসলে ভারতবর্ষের একজন রাজনৈতিক নাট্যকার।’‌

সল্টলেকের ইস্টার্ন জোনাল কালচারাল সেন্টারে বিজেপি–র আয়োজিত দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আপামর বাঙালিকে বাংলায় জানালেন পুজোর শুভেচ্ছা। বাংলা ভাষা, বাঙালির আতিথিয়তার প্রশংসা করলেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দর মতো মনীষীদের কথাও বললেন তিনি। আর এই সব কিছুকেই ‘‌ভোটের আগে নাটক’‌ বলে কটাক্ষ করলেন পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সাংসদ অধীর চৌধুরী।

অধীর চৌধুরীর কথায়, ‘‌এত বছরে এত দিনে নরেন্দ্র মোদী কখনও বাংলার দুর্গাপুজো উদ্বোধন বা উদ্বোধনের আগে নিজেকে বাঙালি সাজানো, বাংলার মানুষের সংস্কৃতি নিয়ে কথা বলার প্রয়োজন বোধ করেননি। সামনে ভোট। তাই তাঁকে নাটক করতে হবে। ‌নরেন্দ্র মোদী আসলে ভারতবর্ষের একজন রাজনৈতিক নাট্যকার।’‌

এদিন শক্তিদায়িনী দেবীদুর্গার কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানান, কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিটি মুহূর্তে ভারতবর্ষের মহিলাদের সশক্তিকরণ ও তাঁদের নিরাপত্তার খাতিরে কাজ করে চলেছে। ধর্ষণের সাজা স্বরূপ কোনও দোষী মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে। এই প্রসঙ্গে টেনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে এদিন অধীর বলেন, ‘‌ভাল লাগত যদি আজকে দুর্গাপুজোর সময় আপনার মুখে একবার হাথরাসে ধর্ষিত ও খুন হওয়া ওই ১৯ বছরের মেয়েটির কথা শোনা যেত। তার পরিবারকে দেহ না দিয়ে যে কুৎসিত ঘটনা ঘটিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার, তা নিয়েও তো বলতে পারতেন। চিতায় তুলে মেয়েটিকে ডিজেল দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হল। কোন হিন্দুত্বে লেখা আছে এই সব কথা?’

অধীরের মতে, আজ, দুর্গাপুজোর দিন হাথরাস–কাণ্ডে মা দুর্গার কাছে ‌প্রায়শ্চিত্ত করা উচিত ছিল নরেন্দ্র মোদীর। তিনি এদিন স্পষ্ট বলেন, ‘‌বাংলার সংস্কৃতিকে কলুষিত করার চেষ্টা যেন নরেন্দ্র মোদী না করেন। বাংলার সংস্কৃতির মূল ধারা হল বাংলার মানুষ ধর্মনিরপেক্ষতাকে তাঁদের আদর্শ বলে মনে করেন। বাংলার মানুষ জাতপাতের রাজনীতিকে প্রত্যাখান করেছেন। স্বাধীনতার পর থেকে সাম্প্রদায়িকতা এবং জাতপাত কখনও বাংলার মাটিতে তার শেকড় গাঁথতে পারেনি। নরেন্দ্র মোদী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দয়ায় এবং প্রচেষ্টায় বাংলায় সাম্প্রদায়িকতার বীজ বপণ হয়েছে। নরেন্দ্র মোদীকে বলে রাখতে চাই, আপনার এই আশা আমরা পূরণ হতে দেব না। এই বাংলাকে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি থেকে মুক্ত করার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা নিয়ে আমরা রাজনীতি করি।’‌

বন্ধ করুন