কলকাতা পুরসভার ফেসবুক পেজে প্রকাশিত শুভেচ্ছাবার্তা
কলকাতা পুরসভার ফেসবুক পেজে প্রকাশিত শুভেচ্ছাবার্তা

মেয়র ফিরহাদের শুভেচ্ছাবার্তায় ভারতের মানচিত্র থেকে বাদ গেল পাক অধিকৃত কাশ্মীর

  • সম্প্রতি পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে পাকিস্তানের অংশ বলে ইঙ্গিত করায় বিজেপির সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মেয়র ফিরহাদ হাকিমের শুভেচ্ছাবার্তায় ভারতের মানচিত্র থেকে বাদ গেল পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও আকসাই চিন। গতকাল প্রজাতন্ত্র দিবসে কলকাতা পুরসভার ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয় শুভেচ্ছাবার্তাটি। ঘটনার কথা স্বীকার করে ড্যামেজ কন্ট্রোল মোডে চলে গিয়েছে পুরসভা। কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজের জন্য মেয়রের শাস্তি দাবি করেছে বিরোধীরা।

‘এই প্রজাতন্ত্র দিবসে গাঢ় হোক একতার রং’ শীর্ষক সেই শুভেচ্ছাবার্তায় শোভা পাচ্ছে মেয়র ফিরহাদ হাকিমের ছবি ও কলকাতা পুরসভার লোগো। পাশে জলরঙে আঁকা ভারতের মানচিত্র। যদিও তাতে কাশ্মীরের ওপরে দেখা নেই পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও আকসাই চিনের। যে ২ এলাকা ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এই নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয় পুরসভায়।

সেই পোস্টের স্ক্রিনশট
সেই পোস্টের স্ক্রিনশট



সম্প্রতি পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে পাকিস্তানের অংশ বলে ইঙ্গিত করায় বিজেপির সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। CAA-তে আফগানিস্থানকে ভারতের প্রতিবেশী বলে উল্লেখ করায় প্রশ্ন তুলেছিলেন মমতা। বলেছিলেন, আফগানিস্থান আবার ভারতের প্রতিবেশী হল কী করে। জবাবে বিজেপি জানিয়েছিল, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারত ও আফগানিস্থানের ১০২ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে। তার মানে কি পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ভারতের অংশ বলে মনে করেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? পালটা প্রশ্ন তুলেছিল বিজেপি। এবার ফিরহাদ হাকিমকে নিয়েও একই প্রশ্ন তুলছে তারা।

পাকিস্তানি সাংবাদিকের কাছে কলকাতার গার্ডেনরিচকে ‘মিনি পাকিস্তান’ বলে উল্লেখ করে আগেই বিতর্কে জড়িয়েছিলেন ফিরহাদ হাকিম। এবার ফের একবার বিতর্কে জড়ালেন তিনি। যদিও বিষয়টিকে ‘ভুল’ বলে চালানোর চেষ্টা করছে পুরসভা। তবে ছাড়তে নারাজ বিরোধীরা।

বন্ধ করুন