বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ২০২৪-এই মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নেবেন অভিষেক, টুইট করে বিপাকে অপরূপা পোদ্দার
আরামবাগের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অপরূপা পোদ্দার। ছবি সৌজন্য–এএনআই।
আরামবাগের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ অপরূপা পোদ্দার। ছবি সৌজন্য–এএনআই।

২০২৪-এই মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নেবেন অভিষেক, টুইট করে বিপাকে অপরূপা পোদ্দার

  • অপরূপার এই টুইট ঘিরে কিছুক্ষণের মধ্যেই শোরগোল শুরু হয় দলের মধ্যে। কার অনুমতিতে অপরূপা এসব লিখেছেন উঠতে শুরু করে সেই প্রশ্নও। এরই মধ্যে টুইট ডিলিট করে দেন অপরূপা।

কুণাল ঘোষের পর এবার অভিষেকের মুখ্যমন্ত্রিত্ব নিয়ে তৃণমূল সাংসদ অপরূপা পোদ্দারের টুইট ঘিরে বিতর্ক। মঙ্গরবার, ২০২৪ সালেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী হবেন এক টুইট করেন আরামবাগের সাংসদ। বিতর্ক দানা বাঁধতে সেই টুইট মুছেও দেন তিনি। তবে তৃণমূলের দিক থেকে আসা এই ধরণের একের পর এক টুইটের তাৎপর্য খুঁজছে রাজনৈতিক মহল।

এদিন টুইটে অপরূপা পোদ্দার ওরফে আফরিন আলি লেখেন, ‘আমি চাই,আমাদের দিদি ২০২৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন আরএসএস মনোনীত রাষ্ট্রপতির থেকে। আর এই বিজেপির গোবর্ধন জগদীশ ধনকরের থেকে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ২০২৪ সালে শপথ নেবেন আমাদের প্রিয় যুবনেতা অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।’

অপরূপার এই টুইট ঘিরে কিছুক্ষণের মধ্যেই শোরগোল শুরু হয় দলের মধ্যে। কার অনুমতিতে অপরূপা এসব লিখেছেন উঠতে শুরু করে সেই প্রশ্নও। এরই মধ্যে টুইট ডিলিট করে দেন অপরূপা।

সোমবার ঠিক একই ধরণের ফেসবুক পোস্ট করেছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ। তিনি লিখেছিলেন, ‘২০৩৬ সাল পর্যন্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন মমতাদি। আর সেই ২০৩৬ সালে তিনি অভিভাবকের মতো উপস্থিত থাকবেন এমন অনুষ্ঠানে, যেখানে মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ নেবেন অভিষেক। মুখ্যমন্ত্রিত্বে জ্যোতি বসুর রেকর্ড ভেঙে ভারতে নজির গড়বেন মমতাদি। তবে তার মধ্যে যদি দিল্লির এবং দেশের দায়িত্ব নিতে হয়, তাহলে পরিস্থিতি আরেকরকম তো হবেই।’

কুণালের ফেসবুক পোস্টে প্রশ্ন ওঠে, তাহলে মমতার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দাবির যে কোনও বাস্তব ভিত্তি নেই তা কি স্বীকার করে নিচ্ছে তৃণমূল?

 

বন্ধ করুন