বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > শ্মশানে নয়, ধাপার মাঠে, করোনায় মৃতদের অন্ত্যেষ্টির স্থান ঠিক করল কলকাতা পুরসভা
প্রতীকি ছবি (AFP)
প্রতীকি ছবি (AFP)

শ্মশানে নয়, ধাপার মাঠে, করোনায় মৃতদের অন্ত্যেষ্টির স্থান ঠিক করল কলকাতা পুরসভা

  • কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, কলকাতা বা লাগোয়া এলাকায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হলে দেহ সৎকার করা হবে ধাপার মাঠে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের অন্ত্যেষ্টিস্থল নির্দিষ্ট করল কলকাতা পুরসভা। সংক্রমণের ভয় ও স্থানীয়দের বিরোধ এড়াতে এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। গত সোমবার কলকাতায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ১ ব্যক্তির। তাঁর দেহ সৎকার নিয়ে গভীর রাত পর্যন্ত দড়ি টানাটানি চলে নিমতলা শ্মশানে। তার পরই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতদেহের সৎকারের জন্য নির্দিষ্ট ঠিকানা সন্ধান শুরু করে পুরসভা ও পুলিশ।

কলকাতা পুরসভার মেয়র ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, কলকাতা বা লাগোয়া এলাকায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হলে দেহ সৎকার করা হবে ধাপার মাঠে। অথবা দেহ কবর দেওয়া হবে বাগমারি কবরস্থানে। ধাপার মাঠে কাঠের চিতায় দেহ সৎকারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। তবে ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘প্রার্থনা করি আর যেন কারও মৃত্যু না-হয়।’

গত সোমবার বিকেল ৩.৩০ মিনিট নাগাদ বিধাননগরের বেসরকারি হাসপাতালে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ১ ব্যক্তির। দমদমের বাসিন্দা ওই প্রৌঢ়ের দেহ নিয়ে সোমবার রাত ৯.৩০ মিনিট নাগাদ নিমতলা ঘাটে পৌঁছয় পুলিশ, পুরসভা ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু দেহ পৌঁছনোর পর থেকেই ওই দেহ নিমতলা শ্মশানে দাহ করতে দেওয়া হবে না বলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয়রা। ডোমেরাও দেহ ছুঁতে অস্বীকার করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ময়দানে নামেন পদস্থ কর্তারা। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। বহু দড়ি টানাটানির পর গভীর রাতে নিমতলাতেই দাহ হয় দেহ।

বন্ধ করুন