করোনা-ত্রাসে সোনাগাছিতে ব্যবসায় মন্দা।
করোনা-ত্রাসে সোনাগাছিতে ব্যবসায় মন্দা।

করোনার জেরে ফাঁকা সোনাগাছি, খদ্দের ফেরাচ্ছেন যৌনকর্মীরাও

  • আতঙ্কে শারীরিক সংস্পর্শ এড়াতে চাইছেন সকলেই। বেশ কিছু যৌনকর্মী ব্যবসা বন্ধ রেখেছেন এবং গ্রাহকরাও আসা বন্ধ করেছেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় গত ১০ দিন যাবত্ সুনসান এশিয়ার বৃহত্তম যৌনপল্লি সোনাগাছি। রাস্তায় দেখা নেই যৌনকর্মী এবং তাঁদের গ্রাহকদের।

এগারো হাজারের বেশি যৌনকর্মীর বাস সোনাগাছিতে সাধারণত প্রতিদিন গড়ে ৩০ হাজার গ্রাহক আসেন। কিন্তু মারণভাইরাস সংক্রমণের আতঙ্কে একদিকে যেমন ভাটা দেখা দিয়েছে গ্রাহকের স্রোতে, তেমনই সংক্রমণের ঝুঁকির জেরে ব্যবসা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যৌনকর্মীরাও।

শহরের বৃহত্তম যৌনকর্মী সংগঠনের সভাপতি বিশাখা জানিয়েছেন, ‘আতঙ্কে শারীরিক সংস্পর্শ এড়াতে চাইছেন সকলেই। বেশ কিছু যৌনকর্মী ব্যবসা বন্ধ রেখেছেন এবং গ্রাহকরাও আসা বন্ধ করেছেন।’

সংগঠনের জনসংযোগ আধিকারিক মহাশ্বেতা মুখোপাধ্যায়ের মতে, ‘খুব কম সংখ্যক গ্রাহক আসছেন। মাস্ক প্রায় পাওয়া যাচ্ছে না বললেই চলে এবং জীবাণু সংক্রমণ রোধ করতে নিরাপত্তার কোনও ব্যবস্থা নেই। রাস্তা ফাঁকা পড়ে রয়েছে।’

এক যৌনকর্মী জানালেন, ‘কারও সর্দি-কাশি বা জ্বর দেখা দিলেই তাকে সবাই এড়িয়ে চলতে চাইছে।’ তিনি নিজেও গত তিন দিন কোনও গ্রাহককে পরিষেবা দেননি বলে জানিয়েছেন।

রাজ্যে এখনও পর্যন্ত Covid-19 আক্রান্ত কারও খবর পাওয়া যায়নি। তবে বেশ কয়েক জনের উপরে নজর রাখা হয়েছে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে খবর। রাজ্য প্রশাসনের নির্দেশে ইতিমধ্যে বন্ধ হয়েছে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সোমবার থেকে বন্ধ থাকবে আদালত।

বন্ধ করুন