বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > একদিনে করোনায় সংক্রমিত দু’হাজারের বেশি, ফের বঙ্গে কোভিডের চোখরাঙানি
নতুন করে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। (ANI Photo )
নতুন করে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। (ANI Photo )

একদিনে করোনায় সংক্রমিত দু’হাজারের বেশি, ফের বঙ্গে কোভিডের চোখরাঙানি

  • নতুন করে আক্রান্ত ২০৫৮। রাজ্যের করোনা পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত কলকাতায়।

রাজ্যজুড়ে নতুন করে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাস। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিতের সংখ্যা ২ হাজার ছাড়িয়ে গেল। একইসঙ্গে বেড়েছে মৃত্যুও। একদিনে মৃত্যু হল ৭ জনের। নতুন করে আক্রান্ত ২০৫৮। রাজ্যের করোনা পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত কলকাতায়। তারপরেই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনার পরে সংক্রমণের হারে তৃতীয় স্থানে হাওড়া।

মঙ্গলবার তৃতীয় দফা ভোট মিটেছে রাজ্যে। এখনও বাকি পাঁচ দফা। আর তার আগে জোরকদমে চলছে নির্বাচনী সভা–সমাবেশ। কোভিডবিধি উড়িয়ে মাস্ক ছাড়াই জমায়েত করছেন হাজার হাজার মানুষ। আর সেই উদাসীনতার মাশুল গুনতে হচ্ছে রাজ্যবাসীকেই। আবার পাহাড় থেকে সমতলে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এখনই সচেতন না হলে হাসপাতালে জায়গা দেওয়া যাবে না করোনা রোগীদের। মঙ্গলবার এমনই জানালেন উত্তরবঙ্গের কোভিড আধিকারিক ডা সুশান্ত রায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় মৃত্যু হয়েছে তিনজনের। উত্তর ২৪ পরগনা ও হুগলিতে মারা গিয়েছেন একজন করে। মালদা ও মুর্শিদাবাদে একজন করে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। সব মিলিয়ে আজ পর্যন্ত রাজ্যে মৃতের সংখ্যা ১০৩৫৫। আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৩৪। স্বাস্থ্যদপ্তরের মঙ্গলবারের রিপোর্ট বলছে, একদিনে রাজ্যে কোভিড আক্রান্ত ২ হাজার ৫৮ জন। ফলে এদিন রাজ্যের মোট সংক্রমিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৩৪ জন।

চিকিৎসক রায় জানান, নির্বাচন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে কোভিড বিধি মানা হচ্ছে কিনা এটা যাদের দেখা কর্তব্য তারা ঠিকমতো দেখছেন কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। গত নভেম্বর মাসের পর থেকে উত্তরবঙ্গে করোনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। কিন্তু নির্বাচন আসতেই ফের বেড়ে গিয়েয়েছে করোনা। অধিকাংশ সভা সমিতিগুলিতে মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। জানা গিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শতাধিক আক্রান্তের হদিশ মিলেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণা, হাওড়া এবং বীরভূমে। সরকারি হিসেব বলছে, বাংলায় চিকিৎসাধীন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৭৭৫ জন। যা সোমবারের তুলনায় ১ হাজার ৩২৯ জন বেশি।

বন্ধ করুন