বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হাওড়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় কৃষি সমবায় দখল করল বামেরা
প্রতিকি ছবি।

হাওড়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় কৃষি সমবায় দখল করল বামেরা

  • সাঁকরাইলের তৃণমূল বিধায়ক প্রিয়া পাল বলেন, ‘কোনও নোটিশ না দিয়ে ওই সমবায়ে নির্বাচন হয়েছে। আমরা কিছু জানতেই পারিনি। কবে মনোনয়ন পেশ হল, কবেই বা বিজ্ঞপ্তি জারি হল কিছুই জানা গেল না। আমরা আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’

গোটা রাজ্যে যখন ভোটের নামে প্রহসনের অভিযোগে সরব বিরোধীরা তখন হাওড়ার সাঁকরাইলে ঘটল উলটো ঘটনা। বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় দখল হল কৃষি সমবায় সমিতি। তবে তৃণমূল নয়, সাঁকরাইলের শ্যামাপ্রসন্ন কৃষি সমবায় সমিতি দখল করেছে বামেরা। সমবায় সমিতির ৬৪টি আসনের কোনওটিতেই প্রার্থী দিতে পারেনি তৃণমূল বা অন্য কোনও দল। তৃণমূল বিধায়কের দাবি, ওই সমবায়ে যে নির্বাচন হচ্ছে তা জানাই ছিল না কারও।

সাঁকরাইলের তৃণমূল বিধায়ক প্রিয়া পাল বলেন, ‘কোনও নোটিশ না দিয়ে ওই সমবায়ে নির্বাচন হয়েছে। আমরা কিছু জানতেই পারিনি। কবে মনোনয়ন পেশ হল, কবেই বা বিজ্ঞপ্তি জারি হল কিছুই জানা গেল না। আমরা আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’

৩ বার গিয়েছি মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে, তবু দেখা পাইনি, দাবি নিহত অতনুর ঠাকুমার

মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল মঙ্গলবার। এদিন বিকেলে সমবায়ের সামনে আবির খেলায় মেতে ওঠেন বাম কর্মী সমর্থকরা।

জানা গিয়েছে এই সমাবায়ে শেষ নির্বাচন হয়েছিল ২০১৫ সালে। তার পর নির্বাচন করানোর দাবিতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল সমবায়ের সদস্যরা। হাইকোর্টের নির্দেশেই নির্বাচন হয়েছে। তাতে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় জিতেছে বামেরা।

জেলার রাজনীতির কারবারিরা বলছেন, দুর্নীতির তদন্তে তৃণমূল কংগ্রেস এতই উদ্বিগ্ন যে ভোটের খোঁজ নেওয়ার সময় হয়নি তাদের। এর পর কার বাড়িতে সিবিআই যাবে সেই ভয়ে সিঁটিয়ে আছেন ছোট বড় তৃণমূল নেতারা। সেজন্যই নির্বাচনের খোঁজ পাননি তাঁরা।

 

 

বন্ধ করুন