বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > সিপিআইএমের রাজ্য সম্মেলন পিছিয়ে যাচ্ছে, তাহলে কবে হবে এই কর্মসূচি?‌ জানুন

সিপিআইএমের রাজ্য সম্মেলন পিছিয়ে যাচ্ছে, তাহলে কবে হবে এই কর্মসূচি?‌ জানুন

সিপিআইএম।

সিপিআইএমের ২৩তম রাজ্য সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল ১৯ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি প্রমোদ দাশগুপ্ত ভবনে।

সিপিআইএমের রাজ্য সম্মেলন আবার পিছিয়ে গেল। একুশের নির্বাচনের জন্য একবছর পিছিয়ে গিয়েছিল। এবার করোনাভাইরাস রক্তচক্ষু দেখানোয় তা আবার পিছিয়ে দিতে হচ্ছে। এমনকী পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে বেশ কয়েকটি জেলার সম্মেলনও। তাই গোটা পর্বটাই টেনে মার্চ মাসে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে চলেছে বলে সূত্রের খবর।

ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি জেলার সম্মেলন সম্পূর্ণ হয়েছে। জানুয়ারি–ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে সম্মেলনের কর্মসূচি ছিল। কিন্তু সেইসব এখন শিকয়ে উঠেছে। কারণ করোনাভাইরাস ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ছে। আর তাতে এখন সিপিআইএমের পক্ককেশধারীরা বেশ চিন্তিত। কারণ একবার সংক্রমণ শরীরে ঢুকে পড়লে প্রাণবায়ু বেরিয়ে যেতে পারে। তাই পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিপিআইএমের ২৩তম রাজ্য সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল ১৯ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি প্রমোদ দাশগুপ্ত ভবনে। করোনাভাইরাসের জেরে রাজ্য সম্মেলন পিছিয়ে দেওয়ারই সিদ্ধান্ত হয়েছে। এমনকী পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে দুই ২৪ পরগনা, কলকাতা, দুই মেদিনীপুর এবং হাওড়ার জেলা সম্মেলনও।

মুজফফর আহমেদ সূত্রে খবর, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। যেখানে ছিলেন স্বয়ং দলের রাজ্য সম্পাদক তথা চিকিৎসক সূর্যকান্ত মিশ্র। সেই আলাপ–আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সম্মেলন পিছিয়ে দেওয়া হবে। সেটা কবে করা যেতে পারে?‌ চিকিৎসকদের জিজ্ঞাসা করেন সূর্যকান্ত মিশ্র। চিকিৎসকরা তাঁকে জানান, এই ঢেউ ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত থাকবে। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সম্মেলন পিছিয়ে মার্চ মাস করা হোক।

এমনকী পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে জেলা সম্মেলনও মার্চে হতে পারে। জেলা সম্মেলনের সূচিতে এই পরিবর্তন হওয়ায় রাজ্য সম্মেলনও মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহের আগে করা যাবে না বলেই মনে করছেন দলের শীর্ষ নেতারা। তবে সিপিআইএমের পার্টি কংগ্রেস হওয়ার কথা আগামী এপ্রিল মাসে কেরলে। আর হায়দরাবাদে আগামী ৭–৯ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা।

বন্ধ করুন