বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Calcutta University: কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমবায় নির্বাচনে জয় সিপিএমের, একটি আসনও পায়নি তৃণমূল

Calcutta University: কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমবায় নির্বাচনে জয় সিপিএমের, একটি আসনও পায়নি তৃণমূল

সমবায় নির্বাচনে জয় পেল সিপিএম।

তৃণমূল জমানার শুরু থেকেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেনেট, সিন্ডিকেট নির্বাচন নিয়ে সরব হতে দেখা গিয়েছিল বামেদের। তাতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালন সমিতিতে বড় কোনও বদল ঘটেনি। সমবায় সমিতির নির্বাচনে বাম সমর্থিত প্রার্থীদের জয়কে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বড় ঘটনা বলেই মনে করছেন শিক্ষা–কর্মীদের একাংশ।

জেলার পর এবার শহরের সমবায় নির্বাচনে জয় পেল সিপিএম। এবার খোদ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কৰ্মচারী সমবায় সমিতির নির্বাচনে জয় পেল সিপিএম সমর্থিত সংগঠন। আর তাতেই যেন অক্সিজেন পেল তারা। ১১টি আসনের মধ্যে ১০টিই তাদের দখলে গিয়েছে। একটি আসনে জয় পেয়েছে এসইউসিআই মনোনীত প্রার্থী। তাই এবার সমবায় বোর্ড গঠন করতে চলেছে বামেরা। আগে এই সমবায়ের বোর্ড ছিল কংগ্রেসের হাতে। ২০১৭ সালে নির্বাচন হয়েছিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ফলপ্রকাশের পর জয়ী প্রার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সার্টিফিকেট দিতে টালবাহানা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠে। সার্টিফিকেটের দাবিতে কর্তৃপক্ষকে ঘেরাও করে অবস্থান বিক্ষোভও চলে। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। তবে নিয়মমাফিক শংসাপত্র দেওয়া হয়েছে। ২০১৭ সালে শেষ এই কৰ্মচারী সমবায় সমিতির নির্বাচন হয়েছিল। তখন জয় পেয়েছিল কংগ্রেস সমর্থিত ইউনিয়ন। এবার তা পুনর্দখল করল বামেরা। তৃণমূল কিছু পেল না।

এদিকে পূর্ব মেদিনীপুরে দু’‌দিন আগেই কৃষি সমবায় সমিতির নির্বাচনে জিতেছিল বামেরা। ভগবানপুরের সেই নির্বাচনে বিজেপি–তৃণমূল কংগ্রেস কেউ দাগ কাটতে পারেনি। অথচ একুশের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে জিতেছিল বিজেপি। এবার এখানেও কিছু করতে পারল না তৃণমূল কংগ্রেস। কার্যত শূন্য পেল তারা। আর এই ফলে উজ্জীবিত লাল পার্টি।

অন্যদিকে তৃণমূল জমানার শুরু থেকেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেনেট, সিন্ডিকেট নির্বাচন নিয়ে সরব হতে দেখা গিয়েছিল বামেদের। যদিও তাতে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালন সমিতিতে বড় কোনও বদল ঘটেনি। এই সমবায় সমিতির নির্বাচনে বাম সমর্থিত প্রার্থীদের জয়কে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বড় ঘটনা বলেই মনে করছেন শিক্ষা–কর্মীদের একাংশ। রাতে সাড়ে ১১টা নাগাদ জয়ের শংসাপত্র পেয়ে লাল আবির ছড়িয়ে দেওয়া হয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে।

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন