বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ঘণ্টায় ১৭০কিমি বেগে বইবে ঝড়, মন্দারমণিতে আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় আমফান, জানাল IMD
শনিবার সকালে প্রকাশিত মৌসম ভবনের পূর্বাভাস। 
শনিবার সকালে প্রকাশিত মৌসম ভবনের পূর্বাভাস। 

ঘণ্টায় ১৭০কিমি বেগে বইবে ঝড়, মন্দারমণিতে আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় আমফান, জানাল IMD

  • হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুসারে ভূভাগে প্রবেশ করার সময় ঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের গতিগের থাকবে ঘণ্টায় প্রায় ১৫০ কিলোমিটার।

সত্যি হল আশঙ্কা। প্রবল শক্তি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ উপকূলেই আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। শনিবার সকালে এমনই সতর্কতা জারি করল মৌসম ভবন। আগামী বুধবার বেলা ১২টায় মন্দারমণির কাছে ভূভাগে প্রবেশ করতে চলেছে ঘূর্ণিঝড়টি। যার জেরে পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গজুড়ে। 

মৌসম ভবন পূর্বাভাসের যে ছবি প্রকাশ তাতে দেখা যাচ্ছে, মোটামুটি আয়লার পথ ধরেই এগোচ্ছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। ২০০৯ সালের ২৬ মে দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূলে আঘাত করেছিল ঘূর্ণিঝড় আয়লা। দশক পেরোলেও সেই ক্ষত এখনো মোছেনি সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা থেকে। সেই প্রলয় আবার ঘনাতে চলেছে বাদাবনের বুকে। 

 

শনিবার সকালে মৌসম ভবন প্রকাশিত বুলেটিন
শনিবার সকালে মৌসম ভবন প্রকাশিত বুলেটিন

হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুসারে ভূভাগে প্রবেশ করার সময় ঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের সর্বোচ্চ গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় প্রায় ১৭০ কিলোমিটার। পূর্ব মেদিনীপুর দিয়ে প্রবেশের পর হাওড়া, কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ হয়ে ঝড়টি ঢুকবে বাংলাদেশে। 

বর্তমানে দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ হিসাবে দিঘা থেকে ১,২৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছে আমফান। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজই সেটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেবে। এবং আগামী ২৪ ঘণ্টায় সেটি প্রবল ঘূর্ণিঝড় হয়ে গতিমুখ বদল করবে। বর্তমানে উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোলেও আগামিকাল থেকে সেটি উত্তর-পূর্ব দিকে এগোতে থাকবে।

 

সত্যি হল আশঙ্কা। প্রবল শক্তি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ উপকূলেই আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। শনিবার সকালে এমনই সতর্কতা জারি করল মৌসম ভবন। আগামী বুধবার বেলা ১২টায় হলদিয়ার কাছে ভূভাগে প্রবেশ করতে চলেছে ঘূর্ণিঝড়টি। যার জেরে পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। প্রবল বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গজুড়ে। 

মৌসম ভবন পূর্বাভাসের যে ছবি প্রকাশ তাতে দেখা যাচ্ছে, মোটামুটি আয়লার পথ ধরেই এগোচ্ছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। ২০০৯ সালের ২৬ মে দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূলে আঘাত করেছিল ঘূর্ণিঝড় আয়লা। দশক পেরোলেও সেই ক্ষত এখনো মোছেনি সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা থেকে। সেই প্রলয় আবার ঘনাতে চলেছে বাদাবনের বুকে। 

হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুসারে ভূভাগে প্রবেশ করার সময় ঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের গতিগের থাকবে ঘণ্টায় প্রায় ১৫০ কিলোমিটার। পূর্ব মেদিনীপুর দিয়ে প্রবেশের পর হাওড়া, কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ হয়ে ঝড়টি ঢুকবে বাংলাদেশে। 

বর্তমানে দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ হিসাবে দিঘা থেকে ১,২৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছে আমফান। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজই সেটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেবে। এবং আগামী ২৪ ঘণ্টায় সেটি প্রবল ঘূর্ণিঝড় হয়ে গতিমুখ বদল করবে। বর্তমানে উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোলেও আগামিকাল থেকে সেটি উত্তর-পূর্ব দিকে এগোতে থাকবে।

 

বন্ধ করুন