বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কোভিড ইউনিটে ভর্তিতে দেরি!‌ স্ট্রেচারেই মৃত্যু করোনা আক্রান্ত ক্যানসার রোগীর
নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল। ফাইল ছবি
নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল। ফাইল ছবি

কোভিড ইউনিটে ভর্তিতে দেরি!‌ স্ট্রেচারেই মৃত্যু করোনা আক্রান্ত ক্যানসার রোগীর

  • হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে পৌঁছনোর পর সেখানে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক, নার্সদের ‘‌সিদ্ধান্ত’‌ নিতে গিয়েই ৩০ মিনিট কেটে যায় বলে অভিযোগ। শেষে স্ট্রেচারেই মৃত্যু হয় নীরঞ্জনবাবুর।

ফের সরকারি হাসপাতালে গাফিলতির জেরে রোগী মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। একই হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত এক ক্যানসার রোগীকে জেনারেল ওয়ার্ড থেকে কোভিড ইউনিটে স্থানান্তর করা হচ্ছিল। আর তাতেই অনেকটা দেরি হয়ে যায়। ৩০ মিনিট কোভিড ইউনিটে অপেক্ষার পর স্ট্রেচারেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন কল্যাণীর বাসিন্দা নীরঞ্জন চৌধুরী। রবিবার শিয়ালদহর নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের ঘটনা।

জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসার আক্রান্ত নীরঞ্জনবাবু। গত ৪ মাস ধরে এনআরএস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। সম্প্রতি তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে সিসিএউ–তে ভর্তি করানোর কথা বলা হয়। একইসঙ্গে শনিবার তাঁর করোনা পরীক্ষাও করানো হয়। আজ, রবিবার সেই পরীক্ষার রিপোর্টই পজিটিভ এসেছে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে হাসপাতালের ভেতরে থাকা কোভিড ইউনিটে স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা।

অভিযোগ, এদিন তাঁকে কোভিড ইউনিটে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে ওই রোগীকে ৩০ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। জেনারেল ওয়ার্ডের চিকিৎসক তাঁকে হাসপাতালের কোভিড ইউনিটের সিসিইউ–তে ভর্তি করানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন। এদিন হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে পৌঁছনোর পর সেখানে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক, নার্সদের ‘‌সিদ্ধান্ত’‌ নিতে গিয়েই ৩০ মিনিট কেটে যায় বলে অভিযোগ। শেষে স্ট্রেচারেই মৃত্যু হয় নীরঞ্জনবাবুর।

তাঁর পরিবারের অভিযোগ, রোগীর অবস্থার অবনতি হচ্ছে বলে বারবার কোভিড ইউনিটের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীদের বলা হলেও তাঁরা কোনও পদক্ষেপ করেননি। অভিযোগ, একপ্রকার বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হল নীরঞ্জন চৌধুরীর। এদিকে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। তাঁদের মতে, একই হাসপাতালে এক বিভাগ থেকে অন্য বিভাগে ভর্তি করানোর ক্ষেত্রে এতটা সময় লাগার কথা নয়। বিভাগীয় তদন্ত শুরু করেছে এনআরএস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

বন্ধ করুন