বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ISF রাজনৈতিক দল, তারা লড়াই করছে, তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবেন না? দিলীপ

ISF রাজনৈতিক দল, তারা লড়াই করছে, তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবেন না? দিলীপ

দিলীপ ঘোষ।

তাঁর প্রশ্ন, ‘ISF লড়াই করছে। তারা একটি রাজনৈতিক দল। তাদের বিধায়ক আছে। তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবেন না? তাদের বোম মারবেন? এটা তো কেউ সমর্থন করবে না।

সিপিএম কংগ্রেসের পর এবার ISF বিধায়ক নৌসাদ সিদ্দিকির মুক্তির দাবি জানালেন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষও। মঙ্গলবার ভোরে নিউ টাউনের ইকো পার্কের সামনে একথা বলেন তিনি। শাসকদল তৃণমূলকে তাঁর প্রশ্ন, ‘ISF লড়াই করছে। তারা একটি রাজনৈতিক দল। তাদের বিধায়ক আছে। তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবেন না?’

এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘ISF ও CPM তো সমঝোতা করেছে, তারা তো বন্ধু। লুকানোর কী আছে? গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় বিরোধী দলের কেউ কর্মসূচি পালন করতে গেলে তাকে কেউ আটকাবে এটা কেউ সমর্থন করতে পরে না। আমরা তার ভুক্তভোগী এত বছর ধরে। আমরা লড়াই করেছি বলে মানুষ আমাদের সঙ্গে দাঁড়িয়েছেন। মানুষ গণতন্ত্রের পক্ষে। সিপিএমও ঠিক এই জিনিসই করত। তাই তারা মুছে গেছে। অন্য কাউকে ধরে বেঁচে থাকার চেষ্টা করলে সফল হবে না’।

তাঁর প্রশ্ন, ‘ISF লড়াই করছে। তারা একটি রাজনৈতিক দল। তাদের বিধায়ক আছে। তাদের কর্মসূচি পালন করতে দেবেন না? তাদের বোম মারবেন? এটা তো কেউ সমর্থন করবে না। আমরা চাই শান্তি শৃঙ্খলা বিঘ্নিত না করে মানুষকে কষ্ট না দিয়ে আন্দোলন হোক। গত ৫০ বছর ধরে মানুষ এসব দেখে আসছে। মানুষের উন্নতি হল না কিছু নেতার উন্নতি হয়ে গেল, এটার পরিবর্তন দরকার’।

রবিবার ISF-এর প্রতিষ্ঠা দিবসে ভাঙড়ের হাতিশালায় তৃণমূলের সঙ্গে তাদের দলীয় কর্মীদের সংঘর্ষ বাঁধে। সেই সংঘর্ষের আঁচ এসে পৌঁছয় কলকাতার ধর্মতলায়। হাতিশালায় হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন ISF কর্মী সমর্থকরা। নেতৃত্ব দেন বিধায়ক নৌসাদ সিদ্দিকি। পুলিশ অবরোধ তুলতে এলে রণক্ষেত্রের পরিস্থিতি তৈরি হয়। তখনই ISF বিধায়ক নৌসাদ সিদ্দিকিকে টেনে হিঁচড়ে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ৪৬ জন ISF সমর্থক গ্রেফতার হয়েছেন। ওদিকে নৌসাদ সিদ্দিকির মুক্তির দাবিতে নাগরিক মিছিলের ডাক দিয়েছে সিপিএম।

 

বন্ধ করুন