ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

মুখ্যমন্ত্রী তো ঘুমিয়েই আছেন, রবিবারও ঘুমাবেন, মমতাকে কটাক্ষ দিলীপের

  • রাজ্য সরকার করোনার তথ্য গোপন করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, ‘আসল তথ্য বেরিয়ে যাওয়ার ভয়ে কোনও সরকারি আধিকারিককে সাংবাদিক বৈঠক করতে দেন না মুখ্যমন্ত্রী।

প্রতি আক্রমণ নিশ্চিত জেনে আক্রমণ এড়িয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হল কই? মোদীর প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচিকে নিয়ে মমতার ‘আমার ইচ্ছা হলে আমি ঘুমাবো’ মন্তব্যে পালটা আক্রমণ শানালেন বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ। বললেন, ‘উনি (মমতা) তো ঘুমিয়েই আছেন।’

এদিন নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীকে মোদীর প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের আহ্বান সম্পর্কে মমতা বলেন, ‘আপনাদের বলেছে আপনারা করুন না। আমি আমার মতো বলব, প্রাইম মিনিস্টার প্রাইম মিনিস্টারের মতো বলবেন। আমি ওদের কথায় কী করে নাক গলাবো? এতো মহা মুশকিল। আমি করোনা সামলাবো, না আপনারা রাজনৈতিক যুদ্ধ লাগাবেন? আপনার যদি মনে হয় প্রাইম মিনিস্টার ভাল বলেছেন, আপনি শুনবেন। আমার ইচ্ছে হলে আমি ঘুমাবো।‘

মমতার মন্তব্যের শেষ লাইনটিকে হাতিয়ার করে এদিন আক্রমণে নামেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘রাজ্যের অবস্থা দেখে সবাই বুঝতে পারছে মুখ্যমন্ত্রী ঘুমিয়েই আছেন। রবিবার রাত ৯টায় না হয় আরেকটু ঘুমাবেন। কিন্তু তখন জাগবে গোটা দেশ।’ জনতা কার্ফুর ঘটনা স্মরণ করিয়ে দিলীপবাবু বলেন, সেদিনও তৃণমূল নেতারা মোদীর কাঁসর, ঘণ্টা, থালা বাজাতে বলায় সমালোচনা করেছিলেন। কিন্তু তাতে মানুষ কান দেয়নি।

রাজ্য সরকার করোনার তথ্য গোপন করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বলেন, ‘আসল তথ্য বেরিয়ে যাওয়ার ভয়ে কোনও সরকারি আধিকারিককে সাংবাদিক বৈঠক করতে দেন না মুখ্যমন্ত্রী। সব সাংবাদিক বৈঠকই নিজে করেন।‘

এদিন মমতার বিরুদ্ধে ফের একবার করোনা মোকাবিলার নামে রাজনীতি করার অভিযোগ করেন। বলেন, ‘বিভিন্ন জায়গায় করোনা সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় সামগ্রী না পাওয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীদের বিক্ষোভ চলছে। সেদিকে নজর নেই মুখ্যমন্ত্রীর।’



বন্ধ করুন