বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > বিজেপি এলে ‘বদল’-এর আগে হবে ‘বদলা’, দিলীপ ঘোষের পোস্ট ঘিরে শোরগোল রাজনৈতিক মহলে
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি

বিজেপি এলে ‘বদল’-এর আগে হবে ‘বদলা’, দিলীপ ঘোষের পোস্ট ঘিরে শোরগোল রাজনৈতিক মহলে

  • এই নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। তবে কি চিনকে বার্তা দিতে এই পোস্ট? কিন্তু তাহলে বদলের প্রসঙ্গ কেন? পরে যদিও চিন প্রসঙ্গ নিজেই খারিজ করে দিয়ে দিলীপবাবু জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির প্রেক্ষিতেই এই পোস্ট করেছেন তিনি।

ঠোঁটকাটা বলে ব্যাপক দুর্নাম তাঁর। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় এলে যে বদলের সঙ্গে বদলাও হবে তা আগে বহুবার মুখে বলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এবার একেবারে লিখে দেওয়ালে সেঁটে দিলেন। শুক্রবার এক পোস্ট করেছেন দিলীপবাবু। তা নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। দিলীপবাবুর দাবি, তৃণমূলস্তরের কর্মীদের পাশে থাকতেই এই বার্তা দিয়েছেন তিনি। 

চলিত ভাষায় মনের ক্ষোভ প্রকাশ করতে কখনো দুবার ভাবেন না দিলীপবাবু। এদিনের ফেসবুক পোস্টে দেখা যাচ্ছে গেরুয়া রঙে রঞ্জিত পশ্চিমবঙ্গের মানচিত্রের সামনে দিলীপ বাবুর ছবি। পাশে লাল ও সাদায় লেখা, ‘বদলাও হবে, বদলও হবে।’

এই নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। তবে কি চিনকে বার্তা দিতে এই পোস্ট? কিন্তু তাহলে বদলের প্রসঙ্গ কেন? পরে যদিও চিন প্রসঙ্গ নিজেই খারিজ করে দিয়ে দিলীপবাবু জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির প্রেক্ষিতেই এই পোস্ট করেছেন তিনি।

এদিন তিনি ফের বলেন, ‘রোজ আমাদের কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন। গতকালও দাঁতনে আমাদের এক কর্মীকে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে। পালটা আমি কি শান্তির ললিত বাণী বিতরণ করে বেড়াবো?কক্ষনো নয়! আমাদের কর্মীদের যারা মারছে তাদের পালটা মার খাওয়ার জন্য তৈরি থাকতে হবে। যেদিন ক্ষমতায় আসব সেদিন খুঁজে বার করে মারব।’ 

 

দিলীপবাবু বলেন, ‘২০১১ সালে ‘বদলা নয়, বদল চাই’ স্লোগান দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন মমতা। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে কী হয়েছে? ক্ষমতায় আসার পর থেকে প্রতিদিন বিরোধীদের ওপর আক্রমণ হয়েছে। এমনকী তারা দুর্গত মানুষকে ত্রাণ পর্যন্ত দিতে যেতে পারছে না। ওদের কথা আর কাজ আলাদা। আমাদের তেমন নয়। আমরা ক্ষমতায় এলে যা করব আগে থেকে বলে দিলাম।’ দিলীপবাবু স্পষ্ট করেছেন, দল যে স্লোগান ঠিক করুক না কেন, ২০২১ সালের নির্বাচন এই স্লোগান মুখে নিয়েই লড়বেন তিনি। 

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের বাকি আর ৯ মাস। সাধারণত এই সময় রাজনৈতিক তৎপরতা শুরু হয়ে গেলেও করোনা সংক্রমণের জন্য এবার তেমন প্রচার শুরু করতে পারেনি কোনও দলই। ফলে দলীয় কর্মীদের তাতাতে সোশ্যাল সাইটে বিজেপি এমন স্লোগান আরও ছাড়বে বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। তবে দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দলের নেতা হয়ে হিংসায় মদত দেওয়া কতটা নৈতিক সেই প্রশ্ন থাকবে দিলীপবাবুর কাছে। 

বন্ধ করুন