বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘বামপন্থীরা কাউকে ওপরে উঠতে দেয় না’,বুদ্ধ ইস্যুতে জ্যোতি অধ্যায় মনে করালেন দিলীপ
দিলীপ ঘোষ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
দিলীপ ঘোষ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

‘বামপন্থীরা কাউকে ওপরে উঠতে দেয় না’,বুদ্ধ ইস্যুতে জ্যোতি অধ্যায় মনে করালেন দিলীপ

  • জ্যোতি বাসুর পাশাপাশি দিলীপ ঘোষ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গও টেনে আনেন বামপন্থীদের বিঁধতে।

কাউকেই ওপরে উঠতে দেয় না বামপন্থীরা। জ্যোতি বসুর প্রধানমন্ত্রিত্বের প্রসঙ্গ টেনে এনে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের পদ্মভূষণ প্রসঙ্গে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের। বৃহস্পতিবার নিউটাউনে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গও টেনে আনেন। বলেন, ‘সোমনাথবাবুও একই ঘটনার শিকার। তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তাঁর মৃত্যুর পর তাঁর মেয়ে বাড়িতে দলের নেতাদের ঢুকতে দেননি।’

এদিন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের পদ্ম সম্মান প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘কমিউনিস্টরা কাঁকড়ার মতো। কাউকেই ওপরে উঠতে দেয় না। জ্যোতি বসুকে প্রধানমন্ত্রী হতে দেয়নি। বুদ্ধবাবুকে পদ্মশ্রী নিতে দিল না। উনি শুধু রাজনীতিবিদ নন। তিনি সাহিত্যিকও বটে। শুরুতেই দল বলে দিল, নেওয়া যাবে না। উনি দলীয় অনুশাসন মেনে চলেন। তাই উনি নিতে অস্বীকার করলেন।’

উল্লেখ্য, সামাজিক ক্ষেত্রে অবদানের জন্য রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে পদ্ম-সম্মানে ভূষিত করা হবে বলে ঘোষণা করে কেন্দ্র। পরে বুদ্ধবাবু জানান, এই সম্মান তিনি গ্রহণ করছেন না। ছোট্ট বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘পদ্মভূষণ নিয়ে আমায় কেউ কিছু জানায়নি৷ যদি আমায় পদ্মভূষণ দেওয়া হয়ে থাকে তাহলে আমি তা প্রত্যাখ্যান করছি৷’ তবে এরপর কেন্দ্রের তরফে জানানো হয় যে মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এক উচ্চপদস্থ কর্তা বুদ্ধবাবুর বাড়িতে ফোন করে তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। সেই সময় বুদ্ধবাবুর স্ত্রী কোনও নেতিবাচক কথা না বললে সেই কর্তা শুভেচ্ছা জানিয়ে ফোন রেখে দেন। এই আবহে বুদ্ধবাবুর পদ্ম সম্মান ফেরানো নিয়ে রাজনৈতিক তরজা তুঙ্গে উঠেছে।

বন্ধ করুন