বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ২০ দিনে মনে পড়েনি, অভিষেক বেরোতেই মুকুল রায়ের স্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে দিলীপ
দিলীপ ঘোষ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
দিলীপ ঘোষ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

২০ দিনে মনে পড়েনি, অভিষেক বেরোতেই মুকুল রায়ের স্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে দিলীপ

  • রাত ৯টা নাগাদ হাসপাতালে পৌঁছন দিলীপ ঘোষ। সেখানে কৃষ্ণাদেবীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন তিনি। এর পরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, কী এমন হল যে ২০ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি একজনকে দেখতে রাত ৯টায় ছুটতে হল দিলীপবাবুকে?

তৃণমূলের চালে ফের মাত হল বিজেপি। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরেই মুকুল রায়ের স্ত্রীকে দেখতে কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে ছুটলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। যার পর বিজেপির অন্দরেই প্রশ্ন উঠছে, প্রায় ২০ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি মুকুলবাবুর স্ত্রী, এতদিনে তাঁর কথা মনে পড়ল দলের রাজ্য নেতৃত্বের?

বুধবার সন্ধ্যায় বেসরকারি হাসপাতালে মুকুল রায়ের স্ত্রী কৃষ্ণা রায়কে দেখতে যান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তখন হাসপাতালে ছিলেন না মুকুলবাবু। তবে তাঁর ছেলে শুভ্রাংশু ছিলেন সেখানে। তাঁর সঙ্গেই কথা বলেন অভিষেক। জানেন কৃষ্ণাদেবীর শারীরিক অবস্থা। 

এর পরই রাত ৯টা নাগাদ হাসপাতালে পৌঁছন দিলীপ ঘোষ। সেখানে কৃষ্ণাদেবীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেন তিনি। এর পরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে, কী এমন হল যে ২০ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি একজনকে দেখতে রাত ৯টায় ছুটতে হল দিলীপবাবুকে?

সূত্রের খবর, মুকুলবাবু ও কৃষ্ণাদেবী করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরেও দলের তরফে দেখতে যাননি কেউ। এর পর মুকুলবাবু সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন। কৃষ্ণাদেবী করোনা মুক্ত হলেও তাঁর শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়ে গিয়েছে। তাই ICU-তে ভর্তি রয়েছেন তিনি। দলের তরফে তাঁকে বা তাঁর স্ত্রীকে কেউ দেখতে না হাসপাতালে না আসায় কিছুটা ক্ষুব্ধ বিজেপির সর্বভারতী সহ সভাপতি। 

বিজেপির তরফে যদিও দাবি করা হয়েছে, করোনা আক্রান্ত কারও সঙ্গে হাসপাতালে গিয়ে দেখা করা সম্ভব নয়। তাছাড়া হাসপাতালে গেলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কাও রয়েছে। সেকথা ভেবেই মহামারিকালে মুকুলবাবু বা তাঁর স্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে যাননি দলের কোনও নেতা। তবে ফোনে তাদের খোঁজ খবর রাখা হয়েছে। 

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, মুকুল রায়ের যে দলে এখনো গুরুত্বপূর্ণ সেই বার্তা দিতেই দেরি না করে হাসপাতালে পৌঁছেছেন দিলীপ।

 

বন্ধ করুন