বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > R G Kar: আরজিকরে মহিলার মাংস খুবলে নিল কুকুর! চিকিৎসার জন্য পাঠানো হল অন্য হাসপাতলে
আরজিকর হাসপাতাল।
আরজিকর হাসপাতাল।

R G Kar: আরজিকরে মহিলার মাংস খুবলে নিল কুকুর! চিকিৎসার জন্য পাঠানো হল অন্য হাসপাতলে

  • ওই মহিলার নাম সাবিনা বিবি। তিনি বসিরহাটের মাটিয়া থানার গোবিলা পূর্ব পাড়ার বাসিন্দা। তার এক আত্মীয়া কিডনির সমস্যা নিয়ে আরজিকর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতাল চত্বরে এক মহিলাকে কামড়ে মাংস খুবলে নিল কুকুরের দল, অথচ সেই হাসপাতালে তার চিকিৎসাই করা হল না। শুধুমাত্র ব্যান্ডেজ লাগিয়ে মহিলাকে পাঠিয়ে দেওয়া হল অন্য হাসপাতলে। ফের রোগী ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল রাজ্যের অন্যতম বড় সরকারি হাসপাতাল আরজিকর মেডিক্যাল কলেজের বিরুদ্ধে। হাসপাতালের বিরুদ্ধে শুধুমাত্র রোগী ফিরিয়ে দেওয়ারই অভিযোগ ওঠেনি, ইদানীং আরজিকরে যেভাবে কুকুরের উৎপাত বেড়েছে তার ফলে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে রোগী এবং রোগী পরিজনদের। এই পরিস্থিতিতে হাসপাতালে কুকুরের উৎপাত কমাতে হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, ওই মহিলার নাম সাবিনা বিবি। তিনি বসিরহাটের মাটিয়া থানার গোবিলা পূর্ব পাড়ার বাসিন্দা। তার এক আত্মীয়া কিডনির সমস্যা নিয়ে আরজিকর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তাকে দেখভালের জন্য তিনি হাসপাতালে ছিলেন। গত বুধবার হাসপাতালের দোতলা থেকে নামার সময় কমপক্ষে ১২ টা কুকুর তাকে ঘিরে ধরে। হাসপাতালের কর্মীরা তাকে বাঁচাতে আসার আগেই ততক্ষণে তার শরীরের ৯টি জায়গা থেকে মাংস খুবলে নেয় সারমেয়র দল।

সাবিনার পরিবারের অভিযোগ আরজিকরে শুধুমাত্র ব্যান্ডেজ করে তাকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। সেখানে ইনজেকশন দেওয়া হয় এবং সেখান থেকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় এনআরএস হাসপাতালে। পরে ওই মহিলা বাড়িতে ফিরে যান। শনিবার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ওই মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা সিদ্ধার্থ নিয়োগী। তিনি নিজেই এ বিষয়টি দেখছেন বলে জানিয়েছেন। অন্যদিকে, হাসপাতালে কুকুরের উৎপাত কমাতে ইতিমধ্যেই রোগী কল্যাণ সমিতির সঙ্গে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান তথা বিধায়ক এবং চিকিৎসক সুদীপ্ত রায় জানিয়েছেন, হাসপাতাল চত্বরে ঘুরে বেড়ানো কুকুর বিড়াল সরিয়ে নেওয়ার জন্য পুরসভাকে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ওই মহিলাকে চিকিৎসার জন্য কেন অন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে সে বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

বন্ধ করুন