বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ঝড় চলে গেলেই ত্রাণশিবির থেকে বাড়ি চলে যাবেন না, কাল আসবে কোটালের বান: মমতা
নবান্নে মমতা। ফাইল ছবি (PTI)
নবান্নে মমতা। ফাইল ছবি (PTI)

ঝড় চলে গেলেই ত্রাণশিবির থেকে বাড়ি চলে যাবেন না, কাল আসবে কোটালের বান: মমতা

  • মুখ্যমন্ত্রী জানান, অন্তত ৫ ফুট উঁচু বান আসতে পারে বলে সতর্কতা জারি হয়েছে। প্রশাসনের আধিকারিকদেরও এব্যাপারে সতর্ক করেছেন তিনি।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ভূভাগে প্রবেশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘূর্ণিঝড়ে অন্তত ১ কোটি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত বলে দাবি করেচেন তিনি। বুধবার দুপুরে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের প্রক্রিয়া ৭২ ঘণ্টা পর শুরু হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া ভরা কোটালের জলোচ্ছ্বাস না কমা পর্যন্ত বিভিন্ন ত্রাণকেন্দ্রে থাকা মানুষকে বাড়ি যেতে বারণ করেছেন তিনি। 

ত্রাণকেন্দ্রে থাকা মানুষকে সতর্ক করে মমতা বলেন, ‘ঝড় চলে গিয়েছে বলেই বাড়ি ফিরে যাবেন না। আজ রাতে ও কাল ভরা কোটালের বান আসবে। তাই একটু কষ্ট করে ত্রাণকেন্দ্রে থাকুন। রাজ্য সরকার খাবার ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসের ব্যবস্থা করবে’। মুখ্যমন্ত্রী জানান, অন্তত ৫ ফুট উঁচু বান আসতে পারে বলে সতর্কতা জারি হয়েছে। প্রশাসনের আধিকারিকদেরও এব্যাপারে সতর্ক করেছেন তিনি। 

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ে সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে সেচ দফতরের। বিভিন্ন জায়গায় নদীবাঁধ ভেঙেছে। কী করে সেগুলির স্থায়ী মেরামত করা যায় তা খতিয়ে দেখতে দফতরের সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।’ 

এছাড়া মমতা বলেন, শুক্রবার ঘূর্ণিঝড় কবলিত পূর্ব মেদিনীপুরের কিছু এলাকা আকাশপথে ঘুরে দেখতে যাবেন তিনি। সম্ভব হলে যাবেন অন্যত্রও। জলোচ্ছ্বাসের সময় বিদ্যুৎ বিভাগকে সতর্ক থাকতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রাখতে বলেছেন তিনি। 

 

বন্ধ করুন