বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দিলীপকে 'পাত্তা দিই না', আক্রমণাত্মক সুরে 'লড়াই' জারি রাখলেন তথাগত
তথাগত রায়। ফাইল ছবি
তথাগত রায়। ফাইল ছবি

দিলীপকে 'পাত্তা দিই না', আক্রমণাত্মক সুরে 'লড়াই' জারি রাখলেন তথাগত

প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বিজেপি নেতা তথাগত রায়কে নিশানা করেই জানিয়েছিলেন, ‘‌আর কতদিন লজ্জা পাবেন। দল ছেড়ে দিন।

বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল ছেড়ে দেওয়ার পর ফের রাজ্যের প্রাক্তন সভাপতি দিলীপ ঘোষকে নিশানা করলেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা তথাগত রায়। টুইটে দিলীপকে নিশানা করে তথাগত জানান, 'লজ্জা লাগলে দিলীপ ঘোষ আমায় বিজেপি ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন। ওকে আমি গুরুত্ব দিই না। আমি দলকে সঠিক পথে আনার চেষ্টা করে যাব।'

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দীপাবলির শুভেচ্ছা জানিয়ে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিনেতা তথা বিজেপি নেতা আসা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্ষোভের কথা জানিয়ে মেল পাঠিয়ে জয় বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী নিজে তাঁকে বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির সদস্য করেছিলেন। 'কিন্তু বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বের টিম সেই পদ থেকে আমায় সরিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে সেই পদে বসিয়েছিল। সেই রাজীবই বিজেপির গালে চড় মেরে তৃণমূলে যোগদান করেছেন।’‌ একইসঙ্গে জয় আরও জানান, ২০১৪ সালে বিজেপিতে যোগদান করার পর তিনি রাজ্যের মানুষের কাছে বিজেপিকে পৌঁছে দিতে অনেক পরিশ্রম করেছেন। সেই কাজ করতে গিয়ে অনেক সময় বিরোধীদের আক্রমণের শিকারও হয়েছেন। অন্যদিকে তাঁর কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা তুলে নেওয়া হয়েছে। 'এই ঘটনার পর আমি নিজেকে খুব অবহেলিত বোধ করছি।’‌ দলে থেকে কাজ করতে পারছেন না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন জয়।

জয়ের এই বক্তব্যের রেশ টেনেই বিজেপি নেতা তথাগত রায় জানান, ‘‌জয় বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি ছেড়ে দিয়েছেন। এভাবে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিতে একের পর এক রক্তক্ষরণ হতে শুরু করেছে তা কিন্তু ভালো নয়। দিলীপ ঘোষ আমায় বলেছেন, এই দল করতে লজ্জা লাগলে আমি যেন বিজেপি ছেড়ে দিই। ওকে আমি গুরুত্ব দিই না। আমি শুধুমাত্র দলের একজন সদস্য। কিন্তু আমি দলেই থাকব ও দলকে সঠিক পথে নিয়ে আসার চেষ্টা চালিয়ে যাব, যতক্ষণ না তা না হয়।’‌

এর আগে বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বিজেপি নেতা তথাগত রায়কে নিশানা করেই জানিয়েছিলেন, ‘‌আর কতদিন লজ্জা পাবেন। দল ছেড়ে দিন। দল যাদের বেশি করে দিয়েছে, তাঁরাই দলের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে। এটা আমাদের দুর্ভাগ্য।’‌ বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে বল ঠেলে দিয়েছেন রাজ্যের বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তাঁর মতে, এই মুহূর্তে তথাগত রায়কে কোনও দায়িত্বে নেই। তাঁকে নিয়ে যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নেবে।

বন্ধ করুন