বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > এবার ‘‌দুয়ারে আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ’‌ কর্মসূচি, নির্দেশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

এবার ‘‌দুয়ারে আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ’‌ কর্মসূচি, নির্দেশ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

  • এই পরিস্থিতিতে আরও একটি পরিষেবা দুয়ারে নিয়ে এলো রাজ্য সরকার।

এখন বেশিরভাগ সরকারি পরিষেবা মানুষের দুয়ারে নিয়ে এসেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। দুয়ারে সরকারের অন্তর্গত দুয়ারে রেশন থেকে দুয়ারে ত্রান সবই মিলছে বাড়ির দোরগোড়ায়। এই পরিস্থিতিতে আরও একটি পরিষেবা দুয়ারে নিয়ে এলো রাজ্য সরকার। আর সেটা হল, ‘‌দুয়ারে আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ’‌। রাজ্য খাদ্য দফতর চালু করছে ‘‌দুয়ারে আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ কর্মসূচি’‌। রেশন গ্রাহকদের জন্যে চালু করা হচ্ছে ‘‌দুয়ারে আধার নম্বর সংযুক্তিকরণ’‌ কর্মসূচি। এমনকী রেশন গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে করা হবে এই কাজ। যা আগে ভাবা যায়নি। ইতিমধ্যেই খাদ্য দফতরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে ওয়েবেল টেকনোলজি লিমিটেডের সঙ্গে। আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে এই কাজ শেষের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগোনো হচ্ছে বলে খবর। এরপরও যদি কেউ বাকি থেকে যায় তাহলে এলাকা ভিত্তিক শিবির খোলা হবে।

কেন এমন করা হচ্ছে?‌ জানা গিয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী, আগস্ট মাস থেকে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ড সংযুক্তিকরণ বাধ্যতামূলক। তাই রাজ্যের খাদ্য দফতর রেশন ডিলারদের এই বিষয়টি জানিয়ে দিয়েছে। জুলাই মাসের মধ্যেই তারা যাতে আধার সংযুক্তিকরণের মাধ্যমে গ্রাহকদের জানিয়ে দিতে পারে। এই কাজের জন্য পূরণ করতে হবে ১১ নম্বর ফর্ম। এই সংযুক্তিকরণ হলে রেশন ডিলারদের কাছে থাকা ই–পাস মেশিনে অনলাইনে যুক্ত হয়ে যাবে। ফলে খাদ্য দ্রব্য গ্রাহকরা নিলেই সঙ্গে সঙ্গে খাদ্য দফতর জানতে পেরে যাবে ওই গ্রাহকের পরিচয়। আর তা কেন্দ্রীয় সার্ভারে যুক্ত হবে।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পরেই, রেশন নিয়ে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই তিনি দ্রুত আধার সংযুক্তিকরণের নির্দেশ দেন। আর সেটাও দুয়ারে। তারপরেই কাজ শুরু করে দেয় খাদ্য দফতর। কাজ করছে রাজ্য সরকারি সংস্থা ওয়েবেল। ইতিমধ্যেই রেশন গ্রাহকরা নিজেরাই অনেকে আধার সংযুক্তিকরণ করার কাজ করছেন। ওয়েবেল এজেন্সি নিয়োগ করেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই কাজ করতে চাইছে। ইতিমধ্যেই দেশে চালু হচ্ছে, এক দেশ, এক রেশন ব্যবস্থা।

বন্ধ করুন