বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Kunal Ghosh: কুণাল ঘোষের নামে ভুয়ো ফেসবুক প্রোফাইল, টাকা চাওয়া হচ্ছে, পুলিশের দ্বারস্থ নেতা

Kunal Ghosh: কুণাল ঘোষের নামে ভুয়ো ফেসবুক প্রোফাইল, টাকা চাওয়া হচ্ছে, পুলিশের দ্বারস্থ নেতা

কুণাল ঘোষ। (ছবি পিটিআই)

সূত্রের খবর, তৃণমূল কংগ্রেসের উপর যত বড় বড় আক্রমণ আসছে তত সুচারুভাবে তা মোকাবিলা করছেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক। এমনকী বিজেপির আগ্রাসী নীতি নিয়ে তিনি চাঁচাছোলা ভাষায় সমালোচনা করেছেন। বিজেপির ছলচাতুরি তিনি ধরে ফেলে জনসমক্ষে নিয়ে এসেছেন। তাই ঘটনার পিছনে বিজেপির হাত থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা–মন্ত্রীদের পিছনে লেগেছে ইডি–সিবিআই। তার জেরে একজন নেতা এবং একজন মন্ত্রী এখন জেলে। এই পরিস্থিতিতে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের নামে ভুয়ো প্রোফাইল ফেসবুকে তৈরি করার অভিযোগ উঠেছে। এমনকী তাঁর ছবি–নাম ব্যবহার করে টাকা চাওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ। এই ভুয়ো প্রোফাইল থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হচ্ছে। বিষয়টি জানতে পেরেই কলকাতা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক।

ঠিক কী জানিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস মুখপাত্র?‌ এই ঘটনার কথা জানতে পেরেই নারকেলডাঙা থানায় তড়িঘড়ি অভিযোগ দায়ের করেছেন। আর সংবাদমাধ্যমে কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, বুধবার রাতে বিষয়টি তাঁর নজরে পড়ে। কেউ বা কারা তাঁর নাম–ছবি ব্যবহার করে ফেসবুক প্রোফাইল তৈরি করেছে। আর সেখান থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে নানা ব্যক্তির কাছে টাকা চাওয়া হয়েছে। এই নিয়ে তিনি ফোন পর্যন্ত পেয়েছেন। নেপথ্যে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র আছে কিনা তা পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

তারপর তিনি কী করলেন?‌ এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই তিনি পাল্টা ফেসবুকে পোস্ট করেন। সেখানে গোটা ঘটনার কথা উল্লেখ করেছেন কুণাল ঘোষ। আর লিখেছেন, ‘‌জরুরি। ফেসবুকে আমার নাম করে অনেকের কাছে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট যাচ্ছে। আমি কাউকে অনুরোধ পাঠাইনি। দয়া করে কেউ সাড়া দেবেন না। অন্য কেউ কিছু অপকর্ম চালাচ্ছে।’‌ এই বার্তা পৌঁছতে তাঁর পরিচিতরা বিষয়টি সম্পর্কে সতর্ক হয়ে যান। তাঁর বদনাম করার চেষ্টাও কেউ করে থাকতে পারেন।

কেন এমন করা হয়েছে?‌ সূত্রের খবর, তৃণমূল কংগ্রেসের উপর যত বড় বড় আক্রমণ আসছে তত সুচারুভাবে তা মোকাবিলা করছেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক। এমনকী বিজেপির আগ্রাসী নীতি নিয়ে তিনি চাঁচাছোলা ভাষায় সমালোচনা করেছেন। বিজেপির ছলচাতুরি তিনি ধরে ফেলে জনসমক্ষে নিয়ে এসেছেন। তাই এই ঘটনার পিছনে বিজেপির হাত থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও পুলিশকে যথাযথ পদক্ষেপ করার আর্জি জানিয়েছেন কুণাল ঘোষ।

বন্ধ করুন