বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হেলমেট না-পরাই কাল হল, রাস্তা থেকে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার
হেলমেট না-পরাই কাল হল, রাস্তা থেকে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার: ছবিটি প্রতীকী (HT_PRINT)
হেলমেট না-পরাই কাল হল, রাস্তা থেকে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার: ছবিটি প্রতীকী (HT_PRINT)

হেলমেট না-পরাই কাল হল, রাস্তা থেকে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ অফিসার

  • মাথায় হেলমেট নেই কেন, কর্তব্যরত ওই সার্জেন্ট প্রশ্ন করতেই, উত্তরে ওই ব্যক্তি জানান, তার নাম রাজীব চক্রবর্তী। নিজের পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি জানায়, সে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগে অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর পদে কর্মরত।  তিনি ওই যুবকের কাছে তার পরিচয়পত্র দেখতে চান। তখন অভিযুক্ত যুবক তাঁকে কলকাতা পুলিশের লোগো দেওয়া এনরোলমেন্ট কমিটির একটি পরিচয়পত্র দেখায়।

মাথায় হেলমেট না-থাকাই কাল হল।‌কলকাতার রাস্তা থেকে ধরা পড়ল ভুয়ো পুলিশ আধিকারিক। মাথায় হেলমেট না-থাকায়, একটি বাইককে আটকেছিলেন ট্রাফিক সার্জেন্টরা। বাইকের ওই সওয়ারি নিজেকে পুলিশ অফিসার বলে দাবি করতেই, ধরা পড়ে গেল জালিয়াতি। পুলিশ প্রমাণ করতে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি নকল পরিচয় পত্র দেখাতেই, সন্দেহ হয় কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্ট‌দের। খোঁজ নিতে গিয়েই তাঁরা জানতে পারেন, সেই পরিচয়পত্রটি ভুয়ো। তারপরেই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে টালিগঞ্জ ট্রাম ডিপোর কাছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত অভিযুক্তের নাম রাজীব চক্রবর্তী। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি উত্তর শহরতলির বরানগরের রাইমোহন ব্যানার্জি রোডের বাসিন্দা। অভিযোগ উঠেছে, রাজীব নিজের এলাকার বাসিন্দাদেরও নিজেকে পুলিশ অফিসার বলে পরিচয় দিত।

এদিন টালিগঞ্জ এলাকায় একটি বাইকে করে হেলমেটহীন অবস্থায় দুই আরোহীকে আসতে দেখে তাদের পথ আটকান দক্ষিণ কলকাতার রিজেন্ট পার্ক ট্রাফিক গার্ডের সার্জেন্ট পার্থসারথী দত্ত।মাথায় হেলমেট নেই কেন, কর্তব্যরত ওই সার্জেন্ট প্রশ্ন করতেই, উত্তরে ওই ব্যক্তি জানান, তার নাম রাজীব চক্রবর্তী। নিজের পরিচয় দিয়ে ওই ব্যক্তি জানায়, সে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগে অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইন্সপেক্টর পদে কর্মরত। তখনই ট্রাফিক সার্জেন্টের সন্দেহ হয়। তিনি ওই যুবকের কাছে তার পরিচয়পত্র দেখতে চান। তখন অভিযুক্ত যুবক তাঁকে কলকাতা পুলিশের লোগো দেওয়া এনরোলমেন্ট কমিটির একটি পরিচয়পত্র দেখায়। ওই ট্রাফিক সার্জেন্ট দেখেন, পরিচয় পত্রের নীচে কলকাতা পুলিশ তথা রাজ্য পুলিশের এক প্রাক্তন শীর্ষকর্তার জাল সই করা রয়েছে। তা দেখেই পার্থসারথিবাবু বুঝতে পারেন যে, ওই পরিচয়পত্রটি নকল।

এই ঘটনার পরই অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। অবশ্য তার সঙ্গে আসা অপর সঙ্গীকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ট্রাফিক পুলিশের তরফে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে রিজেন্ট পার্ক থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তারপরই জালিয়াতির অভিযোগে রাজীবকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি ভুয়ো পুলিশ অফিসার পরিচয় দিয়ে তোলাবাজি করত কি না, তা তাকে জেরা করে জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। পাশাপাশি পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, অভিযুক্তের বাড়িতে তল্লাশিও চালানো হবে।

বন্ধ করুন