বাড়ি > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা - আমফানের পর এবার কি বন্যা? জুনে ব্যাপক বর্ষণের পূর্বাভাসে আশঙ্কা তেমনই
১৪ - ২৩ জুন পর্যন্ত মোট বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস।
১৪ - ২৩ জুন পর্যন্ত মোট বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস।

করোনা - আমফানের পর এবার কি বন্যা? জুনে ব্যাপক বর্ষণের পূর্বাভাসে আশঙ্কা তেমনই

  • পূর্বাভাস অনুসারে আগামী ১৮ -২০ জুন উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে ব্যাপক বৃষ্টি হবে। ২১ জুন আকাশ থাকবে মেঘলা। যার ফলে পশ্চিমবঙ্গের কোনও জায়গা থেকেই আংশিক সূর্যগ্রহণ চাক্ষুষ করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

করোনা – আমফানের পর এবার বন্যার ভ্রুকুটি। জুনেই বন্যায় ভাসতে পারে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে তেমনই জানানো হয়েছে। 

শুক্রবার রাজ্যে ঢুকেছে বর্ষা। আর আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, এবছর শুরুতেই প্রবল সক্রিয় মৌসুমি বায়ু। যার জেরে জুন মাস জুড়ে ব্যাপক বৃষ্টি হতে পারে গোটা পশ্চিমবঙ্গজুড়ে। প্রবল বৃষ্টি হতে পারে ছোটনাগপুরের মালভূমিতেও। যার ফলে জল ছাড়তে হতে পারে ডিভিসির বাঁধগুলি থেকে। 

বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলের তরফে জানানো হয়েছে। দিন কয়েকের মধ্যেই বঙ্গোপসাগরে তৈরি হবে নিম্নচাপ। যা এগোবে বঙ্গের উপকূলের দিকে। তার সঙ্গে এসে মিশবে একটি মৌসুমি অক্ষরেখা। যার ফলে প্রবল বর্ষণ হবে পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, ঝাড়খণ্ড, অসম-সহ উত্তরপূর্ব ও ছত্তিসগড়ে। প্রবল বর্ষণে নিচু এলাকাগুলি প্লাবিত হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে তারা। 

আরেকটি বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা উইন্ডির পূর্বাভাস অনুসারে আগামী ১০ দিনে কলকাতায় ১০০ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টি হতে পারে। দক্ষিণবঙ্গের কোথাও কোথাও ১৫০ মিমি পর্যন্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। 

তরাই ডুয়ার্সের পূর্বাভাস আরও ভয়ানক। সেখানে আগামী ১০ দিনে ২৫০ মিমির বেশি বৃষ্টি হবে বলে জানানো হয়েছে। যার ফলে ডুয়ার্সের নদীগুলিতে ব্যাপক প্লাবনের আশঙ্কা রয়েছে। 

এখানেই শেষ নয়, আগামী ১০ দিনে গোটা ছোটনাগপুরের মালভূমিতে ১০০ – ১৫০ মিমি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে। যার ফলে দামোদর ও তার শাখানদীগুলির জলস্তর ব্যাপক বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আশঙ্কা। 

পূর্বাভাস অনুসারে আগামী ১৮ -২০ জুন উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে ব্যাপক বৃষ্টি হবে। ২১ জুন আকাশ থাকবে মেঘলা। যার ফলে পশ্চিমবঙ্গের কোনও জায়গা থেকেই আংশিক সূর্যগ্রহণ চাক্ষুষ করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। 

 

বন্ধ করুন