বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ঝিমুনি ভাব রয়েছে, দেওয়া হয়েছে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন
বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। পিছনে স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্য।
বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। পিছনে স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্য।

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ঝিমুনি ভাব রয়েছে, দেওয়া হয়েছে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন

  • প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ফুসফুসে কিছু পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। বুদ্ধদেবের আচ্ছন্নভাব এখনও কিছুটা রয়েছে। তবে চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন তিনি।

প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শারীরিক অবস্থা আগের থেকে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। অক্সিজেনের মাত্রা আগের থেকে বেড়েছে। মঙ্গলবার রাতে সামান্য খাবারও খেয়েছেন তিনি। রেমডেসিভিরও দেওয়া হয়েছে তাঁকে। বাড়ি ফেরার জন্য ছটফট করতে শুরু করেছেন। মঙ্গলবার শরীরে অক্সিজেন লেভেল ৮০–র নিচে নেমে গেলে উদ্বেগজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরিবার ও পার্টির পক্ষ থেকে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই হাসপাতালে আগেও দু’‌বার ভর্তি হয়েছেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। দু’‌বারই তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

দুর্যোগের মধ্যে আর বাড়িতে রেখে তাঁর চিকিৎসার ঝুঁকি নেননি চিকিৎসকরা। তাই হাসপাতালে ভর্তি করেই তাঁর চিকিৎসা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে। ৬ জন চিকিৎসকের একটি দল চিকিৎসা করছে তাঁর। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ফুসফুসে কিছু পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। বুদ্ধদেবের আচ্ছন্নভাব এখনও কিছুটা রয়েছে। তবে চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন তিনি।

চিকিৎসকদের সূত্রে খবর, বুধবার তাঁর শারীরিক অবস্থার সামান্য উন্নতি হয়েছে। বাইপ্যাপের সাহায্যে অক্সিজেন দেওয়া হয়েছে তাঁকে। রক্তে শর্করার মাত্রা স্বাভাবিক। তাঁর হৃদস্পন্দন মিনিটে ৫৬। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ঝিমুনিভাব থাকলেও ডাকলে সাড়া দিচ্ছেন। বুধবার সকালে তাঁকে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন দেওয়া হয়েছে। বুদ্ধদেবের অক্সিজেনের এখন ৯২। অর্থাৎ আগের থেকে অনেকটা স্থিতিশীল রয়েছেন তিনি।

চিকিৎসকরা আরও একটি প্রয়োজনীয় ইনজেকশন দেওয়ার কথা ভাবছেন। শারীরিক অবস্থার দিকে প্রতি মুহূর্তে নজর রেখেছেন চিকিৎসকরা। বুদ্ধদেব ও তাঁর স্ত্রীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন