বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‌দুর্নীতি দমন শাখার ওএসডি হলেন রিনা মিত্র, আস্থাভাজনেই ভরসা মুখ্যমন্ত্রীর
রিনা মিত্র। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
রিনা মিত্র। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

‌দুর্নীতি দমন শাখার ওএসডি হলেন রিনা মিত্র, আস্থাভাজনেই ভরসা মুখ্যমন্ত্রীর

রাজ্যপালের কাছে ইতিমধ্যে রাজ্যে নিরাপত্তা কমিশন গঠন নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

রাজ্যের দুর্নীতি দমন শাখার অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি হিসেবে নিযুক্ত হলেন প্রাক্তন আইপিএস অফিসার রিনা মিত্র। এর আগে রাজ্যের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার মুখ্য উপদেষ্টা হিসাবে নিযুক্ত করা হয়েছিল তাঁকে।এবার তাঁকে দুর্নীতি দমন শাখার ওএসডি করলেন মুখ্যমন্ত্রী।উল্লেখ্য, রাজ্যে তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।এই পরিস্থিতিতে রিনা মিত্রকে রাজ্যে এই বিশেষ পদে বহাল করা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা বলেই মনে করা হচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড়ে ইয়াসের পর বাঁধ মেরামতির কাজে গাফিলতি ও বনসৃজন নিয়ে ইতিমধ্যে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।রাজ্য প্রশাসনে কোথাও যদি কোনও দুর্নীতি হয়ে থাকে, সে বিষয়ে যে এবার তদন্ত হবে, তা মুখ্যমন্ত্রীর এই কড়া অবস্থান থেকেই স্পষ্ট।এই পরিস্থিতিতে দুর্নীতি দমন শাখার ওএসডি হিসাবে রিনা মিত্রের এই নিয়োগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বলেই মনে করা হচ্ছে।রিনা মিত্র যখন রাজ্যের অভ্যন্তরীণ মুখ্য উপদেষ্টা ছিলেন, তখন রাজ্যের নিরাপত্তা উপদেষ্টা ছিলেন সুরজিত করপুরকায়স্থ।তাঁর কার্যকালের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।এবার রাজ্যের অভ্যন্তরীণ মুখ্য উপদেষ্টার পদটিও তুলে দেওয়া হল।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জমানায় রাজ্যের নিরাপত্তা উপদেষ্টা সংক্রান্ত পদ তৈরি হলেও নিরাপত্তা কমিশন নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি।রাজ্যপালের কাছে ইতিমধ্যে রাজ্যে নিরাপত্তা কমিশন গঠন নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।তাঁর মতে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্বেও রাজ্যে নিরাপত্তা কমিশনের কোনও অস্তিত্ব নেই।তিনি বিরোধী দলনেতা নিযুক্ত হয়েছেন। কিন্তু কমিশনের সদস্য করার ব্যাপারে তাঁর কাছে কোনও প্রস্তাব আসেনি।

বন্ধ করুন