বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আলুর ব্যবসায় টাকা খাটানোর নামে কোটি টাকার প্রতারণা, ধৃত ব্যাঙ্ক আধিকারিক
আলুর ব্যাবসায় টাকা খাটানোর নামে কোটি টাকার প্রতারণা, ধৃত ব্যাঙ্ক আধিকারিক:  ছবিটি প্রতীকী (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌
আলুর ব্যাবসায় টাকা খাটানোর নামে কোটি টাকার প্রতারণা, ধৃত ব্যাঙ্ক আধিকারিক:  ছবিটি প্রতীকী (‌সৌজন্য ফেসবুক)‌

আলুর ব্যবসায় টাকা খাটানোর নামে কোটি টাকার প্রতারণা, ধৃত ব্যাঙ্ক আধিকারিক

কলকাতায় কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠল বেসরকারি ব্যাঙ্ক আধিকারিকের বিরুদ্ধে।

কলকাতায় কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠল বেসরকারি ব্যাঙ্ক আধিকারিকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই ব্যাঙ্ক আধিকারিককে গ্রেফতার করেছে শেক্সপিয়ার সরণি থানার পুলিশ। অভিযুক্তের স্বামীর বিরুদ্ধেও এই প্রতারণায় সাহায্য করার অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সল্টলেকের বেসরকারি ব্যাঙ্কের অভিযুক্ত আধিকারিকের নাম সুপ্তি মুখোপাধ্যায়। অভিযোগ, আলু ব্যবসায় টাকা খাটানোর নামে অভিযোগকারীকে বিপুল পরিমাণে বন্ড বিক্রি করেছিলেন এই প্রতারক। এই ঘটনার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছেন অভিযুক্তের স্বামীও।

অভিযুক্তরা কীভাবে ঘটিয়েছিলেন এই প্রতারণা? 

প্রতারিত গবেষক পার্থপ্রতিম রায়ের অভিযোগ, আলুর ব্যবসায় বিনিয়োগ করার নামে তাঁকে ধাপে ধাপে কোটি টাকার বন্ড বিক্রি করেছিলেন সুপ্তি ও তাঁর স্বামী। পার্থ অভিযোগে করেছেন, ২০১৭ সালের শেষদিকে সুপ্তি ও তাঁর স্বামীর মাধ্যমে আলু ব্যবসায় বিপুল পরিমাণে অর্থ বিনিয়োগ করে বন্ড কেনেন তিনি। পরবর্তীতে সুপ্তি ও তাঁর স্বামী পার্থকে জানাযন, আরও বেশি টাকা বিনিয়োগ করলে, সেবি অনুমোদিত বন্ডের প্রকৃত নথি পাওয়া যাবে। পার্থ বলেন, ‘‌ওদের কথার উপর ভরসা করে আমাদের পরিবারের সব সদস্যরা মিলে মোট ১ কোটি টাকা বিনিয়োগ করি। তা সত্ত্বেও কোনও নথি আমরা পাইনি। প্রতারণার শিকার হয়েছি বুঝতে পেরে তাঁদের কাছে টাকা ফেরত চাইলেও তা ফেরত দেয়নি ওঁরা।’‌

পার্থর আরও অভিযোগ, ২০১৯ সাল পর্যন্ত উপযুক্ত পরিমাণে সুদ পেলেও পরে আর কোনও টাকা দেওয়া হয়নি। এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে নানা অজুহাত দেখাতে থাকেন সুপ্তি। বিভিন্ন অযৌক্তিক বিষয় বলতে শুরু করেন তিনি। এরপর টাকা ফেরতের নামে বেশ কয়েকটি চেকও দেন সুপ্তি। কিন্তু সেই চেকগুলো বাউন্স হয়ে যায়। এই ঘটনার পরই থানায় অভিযোগ দায়ের করেন পার্থ। তদন্তে নেমে পুলিশ অভিযুক্ত ওই ব্যাঙ্ক আধিকারিককে গ্রেফতার করেছে।

বন্ধ করুন