বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > গণেশ অ্যাভেনিউয়ের অগ্নিকাণ্ডে রক্ষণাবেক্ষণে ঢিলেমির অভিযোগ, শুরু তদন্ত
বাসিন্দাদের দাবি, শুক্রবার রাতে আগুন নেভানোর জন্য জল মেলেনি বাড়ির ট্যাঙ্কে।
বাসিন্দাদের দাবি, শুক্রবার রাতে আগুন নেভানোর জন্য জল মেলেনি বাড়ির ট্যাঙ্কে।

গণেশ অ্যাভেনিউয়ের অগ্নিকাণ্ডে রক্ষণাবেক্ষণে ঢিলেমির অভিযোগ, শুরু তদন্ত

  • বহু বছর ধরেই বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগের হাল বিপজ্জনক। কিন্তু অনেক অভিযোগ জানালেও কোনও ব্যবস্থা নেননি বাড়ির মালিক।

শুক্রবার গভীর রাতে গণেশ চন্দ্র অ্যাভেনিউয়ের বহুতলে আগুন লাগলে দুই জনের মৃত্যু হয়। মারা গিয়েছেন এক মধ্যবয়েসি মহিলা এবং ১২ বছরের কিশোর। অগ্নিকাণ্ডের পিছনে রক্ষণাবেক্ষণে গাফিলতিকেই দায়ী করছেন মৃতের আত্মীয়রা।

তাঁদের দাবি, বহু বছর ধরেই বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগের হাল বিপজ্জনক। কিন্তুতা নিয়ে অনেক বার অভিযোগ জানালেও কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি বাড়ির মালিক বা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা সংস্থা। বাড়িটি অনেক কাল যাবৎ বসবাসের অযোগ্য বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

১৯৩৭ সালে তৈরি বাড়িটিতে ৪০-৫০টি পরিবারের বাস। অধিবাসীদের অভিযোগ, বাড়ির লিফ্টে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে প্রায়ই সমস্যা দেখা দেয়। তা ছাড়া রয়েছে জলের সমস্যা। বাড়ির জলাধারে প্রায়ই জল থাকে না বলে অভিযোগ মৃতের পরিবারের সদস্যদের। তাঁদের দাবি, শুক্রবার রাতেও আগুন নেভানোর জন্য জল মেলেনি বাড়ির ট্যাঙ্কে।

বাড়ির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা অবশ্য জানাচ্ছেন, শহরের যে কোনও প্রাচীন ভবনের মতোই বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা রয়েছে বাড়িটির। সেই কারণেই ওভারহেড বিদ্যুৎবাহী তারের সমাবেশ রয়েছে সেখানে। তাঁদের দাবি, লিফ্ট নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। বাড়ির জলের ট্যাঙ্কেও পর্যাপ্ত পরিমাণে জল মজুত ছিল এবং অগ্নিকাণ্ডে তা ব্যবহার করাও হয়েছে। 

শনিবার সকালেই পৌঁছচ্ছেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা। তদন্ত শুরু করেছে কলকাতা পুলিশ।

বন্ধ করুন