বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌এটি একটি অমার্জনীয় সাংবিধানিক গাফিলতি’‌, সরাসরি সংঘাতে গেলেন রাজ্যপাল
পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ফাইল ছবি

‘‌এটি একটি অমার্জনীয় সাংবিধানিক গাফিলতি’‌, সরাসরি সংঘাতে গেলেন রাজ্যপাল

  • এই ঘটনার পর আজ, বুধবার একটি টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

সকাল সাড়ে ১০টা থেকে প্রস্তুত রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। চেয়ারে বসে তখন অপেক্ষা করছেন। এই বুঝি এলেন রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং ডিজি। কিন্তু সেই অপেক্ষাই সার হল। কারণ বুধবার এঁদের কেউই রাজভবনে পা রাখেননি। আর তখনই ক্ষেপে গেলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। সরাসরি সংঘাতে গেলেন রাজ্যের সঙ্গে রাজ্যপাল। কেন শুভেন্দুকে নেতাই গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হয়নি?‌ এই নিয়ে তাঁদের তলব করা হয়।

এই ঘটনার পর আজ, বুধবার একটি টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ঠিক কী লিখেছেন রাজ্যপাল?‌ এই টুইটে তিনি লেখেন, ‘‌রাজ্য পুলিশের ডিজি এবং রাজ্যের মুখ্যসচিবকে ডেকে পাঠিয়েছিলাম। পরপর তিন দিন তাঁরা সেই তলব এড়িয়ে গিয়েছেন। এখানের বৈঠক বয়কট করেছেন। এটি একটি অমার্জনীয় সাংবিধানিক গাফিলতি। এই রাজ্যে আইনের শাসন চলছে না। শাসকের আইন চলছে।’‌

এখানেই থেমে থাকেননি রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ওই লেখার সঙ্গে একটি ভিডিও পোস্টও করেছেন রাজ্যপাল। সেখানে পর পর তিনবার তলব করা সত্ত্বেও মুখ্যসচিব–ডিজির এইভাবে রাজভবন ‘বয়কট’ একটি ‘কনস্টিটিউশন্যাল ল্যাপস’ অর্থাৎ সাংবিধানিক ক্রুটি বলে উল্লেখ করেছেন। কয়েকদিন আগে ১০ জানুয়ারিও মুখ্যসচিব–রাজ্য পুলিশের ডিজিকে তলব করা হয়েছিল। তখনও তাঁরা অনুপস্থিত ছিলেন। তাই টুইটে রাজ্যপাল লিখেছিলেন, ‘‌কার নির্দেশে বয়কট?’‌

উল্লেখ্য, নেতাই গ্রামে কেন শুভেন্দু অধিকারীকে ঢুকতে দেওয়া হল না?‌ এই প্রশ্নের উত্তর জানতেই বারবার রাজভবনে তলব করা হয়েছিল রাজ্যের ডিজি–মুখ্যসচিবকে। শুভেন্দু অধিকারী রাজ্যপালকে নালিশ করেছিলেন। ৭ জানুয়ারি সেখানে অনুষ্ঠান ছিল। কিন্তু তার আগেই সেখানে আরও একটা অনুষ্ঠান চলছিল। তাই তাঁকে অপেক্ষা করতে বলেছিলেন পুলিশ আধিকারিক।

বন্ধ করুন