বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > রাত ১০টার মধ্যে মুখ্যসচিবের কাছে রিপোর্ট তলব রাজ্যপালের, ১১ ঘণ্টা অবরোধ কেন?
রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

রাত ১০টার মধ্যে মুখ্যসচিবের কাছে রিপোর্ট তলব রাজ্যপালের, ১১ ঘণ্টা অবরোধ কেন?

  • বৃহস্পতিবার ডোমজুড়ে প্রায় ১১ ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করা হয়েছিল। এতে ব্যাপক ভোগান্তি হয়েছিল বাসিন্দাদের। ফের এদিন ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে অবরোধ শুরু হয়। পয়গম্বর হজরত মহম্মদের বিরুদ্ধে নূপুর শর্মার আপত্তিকর মন্তব্য করার প্রতিবাদ জানিয়ে এদিনও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে অশান্তি দানা বেঁধেছে। 

এবার রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্যসচিবের কাছে রিপোর্ট তলব করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যপালের সই করা ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গতকাল থেকে রাজ্যের উদ্বেগজনক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, আজকের একটি মৃত্যুর ঘটনারও খবর পাওয়া গিয়েছে, তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ রাত ১০টার মধ্যে মুখ্যসচিবের কাছ থেকে সশরীরে উপস্থিত থেকে রিপোর্ট চাওয়া হচ্ছে। শান্তি স্থাপনের জন্য সবরকম উদ্যোগ নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

পাশাপাশি চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে ৯ জুনের পর থেকে ১১ ঘণ্টার জন্য ১১৬ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করা হয়েছিল। এটা প্রত্যাশিত ছিল যে প্রশাসন কার্যকরী ব্যবস্থা নেবে। কিন্তু বাস্তবে তা প্রতিফলিত হয়নি। ইমাম অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল একটি ভিডিও ক্লিপ চারদিকে ছড়িয়ে দিয়েছিল প্রতিবাদে নামার জন্য। তারপরেও নজরদারি আরও জোরদার করা দরকার ছিল। শুক্রবারের নমাজের পর কর্মসূচির কথাও ঘোষণা করেছিলেন ওই সংগঠনের সভাপতি।

এদিকে বৃহস্পতিবারই রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপালকে ছবি উপহার দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এনিয়ে নানা কানাঘুষো শুরু হয়ে যায়। তবে তারপরের দিনই রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে মুখ্যসচিবের কাছ থেকে রিপোর্ট তলব করলেন রাজ্যপাল।

এদিকে বৃহস্পতিবার ডোমজুড়ে প্রায় ১১ ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করা হয়েছিল। এতে ব্যাপক ভোগান্তি হয়েছিল বাসিন্দাদের। ফের এদিন ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে অবরোধ শুরু হয়। পয়গম্বর হজরত মহম্মদের বিরুদ্ধে নূপুর শর্মার আপত্তিকর মন্তব্য করার প্রতিবাদ জানিয়ে এদিনও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে অশান্তি দানা বেঁধেছে। তবে অবরোধ তুলে নেওয়ার জন্য বৃহস্পতিবারও অনুরোধ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

বন্ধ করুন