বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'ফোনের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করতে হবে', প্রতারকদের ফাঁদে সরকারি কর্তা, খোয়ালেন টাকা
'ফোনের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করতে হবে', প্রতারকদের ফাঁদে সরকারি কর্তা, খোয়ালেন টাকা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
'ফোনের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করতে হবে', প্রতারকদের ফাঁদে সরকারি কর্তা, খোয়ালেন টাকা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

'ফোনের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করতে হবে', প্রতারকদের ফাঁদে সরকারি কর্তা, খোয়ালেন টাকা

তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ২৬ হাজার ৫১১ টাকা তুলে নেওয়া হয়। জানতে পেরে কিছুটা হকচকিয়ে যান তিনি।

প্রতারকদের ফাঁদে পড়ে এবার নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা খোয়ালেন বন দফতরের এক আধিকারিক। ইতিমধ্যে গোটা বিষয়টি কলকাতা পুলিশের সাইবার থানায় জানানো হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। জানা গিয়েছে, ওই বন দফতরের আধিকারিকের ফেসবুক প্রোফাইলও জাল করেছে অভিযুক্ত ও অন্যদের ঠকিয়েও টাকা আদায় করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, জলপাইগুড়ির বাসিন্দা মণীন্দ্র বিশ্বাস এখন কলকাতায় কর্মরত। তিনি বন দফতরের একজন আধিকারিক। মণীন্দ্র জানান, গত ৪ জুলাই তাঁকে মেসেজ পাঠিয়ে বলা হয়, তাঁর বিএসএনএল নম্বরের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করতে হবে। এটা না করলে পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাবে। এরজন্য একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। সেইসঙ্গে তাঁকে ১০ টাকা রিচার্জ করতে বলা হয়। সেইমতো ঘরে বসেই রিচার্জ করেন তিনি। রিচার্জ করা মাত্রই তাঁকে ফোন করে বলা হয়, যে আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে তিনি রিচার্জ করেছেন, তা মেসেজ করে জানান। এরপর কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি বুঝতে পারেন, তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তোলা হচ্ছে। মণীন্দ্র জানান, তখনই তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ২৬ হাজার ৫১১ টাকা তুলে নেওয়া হয়। জানতে পেরে কিছুটা হকচকিয়ে যান তিনি। পুরো বিষয়টি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকেও জানানো হয়।

এখানেই শেষ নয়, মণীন্দ্রবাবু জানান, তাঁর নামে নকল ফেসবুক প্রোফাইল খুলে তাঁর ঘনিষ্ট কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে ও তাঁদের কাছ থেকে টাকা চাওয়া হয়েছে। গত রবিবার এই খবর পাওয়ার পর ইতিমধ্যে তাঁর ঘনিষ্টদের সতর্ক করে দিয়েছেন তিনি। কেউ যাতে ফাঁদে পা দেন, সে বিষয়ে জানিয়েছেন তিনি। এই ঘটনার সঙ্গে কে বা কারা যুক্ত, তা খোঁজখবর শুরু করেছে পুলিশ।

বন্ধ করুন