বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Cyber Crime: কল সেন্টারে হাওলা যোগ পেল পুলিশ, বিধাননগর থেকে গ্রেফতার ২১, তোলপাড়

Cyber Crime: কল সেন্টারে হাওলা যোগ পেল পুলিশ, বিধাননগর থেকে গ্রেফতার ২১, তোলপাড়

ভুয়ো কল সেন্টারে হানা দিয়ে ৬ মহিলা–সহ ২১ জনকে গ্রেফতার

এই অফিস থেকে ২ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরাগের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৩ লক্ষ ৬৭ হাজার টাকা নগদ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া ৪২টি কম্পিউটার, ২৩টি স্মার্ট ফোন, ২৬টি ডেবিট কার্ড, ৩টি হার্ড ডিস্ক, ১৬টি চেক বুক, ৪টি ব্যাঙ্ক পাসবুক, ৪টি প্যান কার্ড, দুটি রাউটার–সহ নানা নথি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এবার কল সেন্টারে হাওলা যোগ পেল বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানা। সেক্টর ফাইভের ভুয়ো কল সেন্টারে হানা দিয়ে ৬ মহিলা–সহ ২১ জনকে গ্রেফতার করল বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। একাধিকবার ভুয়ো কল সেন্টার ধরা পড়েছে এই সল্টলেক এলাকায়। যা নিয়ে তদন্ত চলছে। সেখানে আজ, একাধিক জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার হয়েছে লক্ষাধিক টাকা এবং গুরুত্বপূর্ণ নথি। এখন ধৃতদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ঠিক কী ঘটেছে সেক্টর ফাইভে?‌ সল্টলেকের সেক্টর ফাইভের ইপি ব্লকের গ্লোবসিন ক্রিস্টাল টাওয়ার বিল্ডিংয়ের ৬ তলায় রেনেসাঁ ইনফো ওয়েব প্রাইভেট লিমিটেড নামের একটি ভুয়ো কল সেন্টার চলছিল। ইকো পার্ক এলাকার বাসিন্দা পরাগ কুণ্ডু ভুয়ো কল সেন্টার চালিয়ে মার্কিন নাগরিকদের ফোন করত। প্রতারকরা মার্কিন টেলিকম সংস্থার কর্মী হিসাবে পরিচয় দিয়ে ইন্টারনেট স্পিড বৃদ্ধি এবং ম্যালওয়্যার অ্যাটাক থেকে সুরক্ষার জন্যে অ্যান্টিভাইরাস সাপোর্ট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিত। তারপর বিদেশি নাগরিকদের কাছ থেকে বিদেশি মুদ্রায় লক্ষাধিক টাকা প্রতারণা করা হতো। সূত্রের খবর, এভাবে কয়েক কোটি টাকা প্রতারণা করে ওই চক্র। অবশেষে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ সংস্থার দুই ডিরেক্টর পরাগ কুণ্ডু এবং সঞ্জয় চন্দ্র দাস সহ–২১ জনকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ঠিক কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, এই চক্রের আড়ালে রয়েছে হাওলা যোগ। এদের জেরা করে জানা গিয়েছে, এই চক্র বিদেশি নাগরিকদের থেকে প্রতারণা করতে তাদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে বলত। পরবর্তীকালে সেই টাকা হাওলার মাধ্যমে নয়াদিল্লির এক ব্যবসায়ীর কাছে পৌঁছে যেত। সেখান থেকে ওই টাকা কলকাতার এক ব্যবসায়ীর মাধ্যমে এসে পৌঁছত পরাগের কাছে। এভাবেই গোটা প্রতারণার চক্রটি চলছিল।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ এই অফিস থেকে ২ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। আর পরাগের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৩ লক্ষ ৬৭ হাজার টাকা নগদ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া ৪২টি কম্পিউটার, ২৩টি স্মার্ট ফোন, ২৬টি ডেবিট কার্ড, ৩টি হার্ড ডিস্ক, ১৬টি চেক বুক, ৪টি ব্যাঙ্ক পাসবুক, ৪টি প্যান কার্ড, দুটি রাউটার–সহ নানা নথি উদ্ধার করেছে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ। আজ, শুক্রবার অভিযুক্তদের বিধাননগর আদালতে তোলা হচ্ছে। এই চক্রের সঙ্গে জড়িতদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ।

বন্ধ করুন