বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > স্বাস্থ্যসাথীতে অনিয়ম, রোগী নেই অথচ বিল বেড়েছে হু হু করে, জরিমানা ৫৬ লক্ষ টাকা
স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

স্বাস্থ্যসাথীতে অনিয়ম, রোগী নেই অথচ বিল বেড়েছে হু হু করে, জরিমানা ৫৬ লক্ষ টাকা

  • অভিযোগ, রোগীর ছুটি হয়ে যাওয়ার পরেও ওরা তাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রেখে দিয়েছিল।

স্বাস্থ্য়সাথী নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ ওঠে। এবার তা নিয়ে নড়েচড়ে বসল রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, তিনটি বেসরকারি নার্সিংহোমকে বড়সর জরিমানা করা হয়েছে। একটি নার্সিংহোমকে ৩৮ লক্ষ টাকা, দ্বিতীয় নার্সিংহোমের ক্ষেত্রে ১৮ লক্ষ টাকা ও অপর নার্সিংহোমের ক্ষেত্রে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তিনটি নার্সিংহোমই বাঁকুড়ার।  কিন্তু ঠিক কী অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে? 

অভিযোগ, রোগীর ছুটি হয়ে যাওয়ার পরেও ওরা তাদের স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রেখে দিয়েছিল। সেই কার্ড নম্বর দিয়ে রোগীর খাতে খরচ ব্লক করে রাখে। সংশ্লিষ্ট রোগী নার্সিংহোমে নেই, অথচ তার নাম করে চিকিৎসার খরচ দিয়ে যেতে হয়েছে সরকারকে। স্বাস্থ্য দফতর তদন্তে নেমে বাঁকুড়ার একটি নার্সিংহোমের ক্ষেত্রে সাতজনের কার্ড, অপরটিতে ১৪জনের ও অন্য নার্সিংহোমের ক্ষেত্রে একটি কার্ড স্বাস্থ্য় দফতর পায়। এরপরই তাদের সাসপেন্ড করা হয়। তাদেরকে ডেকে গোটা বিষয়টি জানতে চাওয়া হয়। তাদেরকেও সতর্কও করা হয়েছে। তবে তিনটি নার্সিংহোমই জরিমানা দিতে রাজি হয়েছে। 

স্বাস্থ্যভবন সূত্রে খবর, স্বাস্থ্যসাথীর নিয়ম অনুসারেই জরিমানার অঙ্ক নির্ধারিত হয়েছে। একের অধিকবার এই অনিয়ম করলে জরিমানা দ্বিগুণ হয়ে যেতে পারে। সাসপেন্ড করা, স্বাস্থ্যসাথীর প্যানেল থেকে বের করে দেওয়া, এমনকী এই ধরণের অনিয়ম করলে লাইসেন্স বাতিলের মতো কড়া দাওয়াই প্রয়োগ করা যেতে পারে সংশ্লিষ্ট নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে। 

 

বন্ধ করুন