বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > মধ্যরাতে দুষ্কৃতী হামলা ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি চত্বরে, রাস্তায় ফেলে মারধর সদস্যদের
তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

মধ্যরাতে দুষ্কৃতী হামলা ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি চত্বরে, রাস্তায় ফেলে মারধর সদস্যদের

  • রবিবার সকাল পর্যন্ত এই ঘটনায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। কেউ গ্রেফতারও হয়নি।

সরস্বতী পূজোয় মেতে উঠেছিল গোটা বাংলা। কিন্তু তাল কাটল মধ্যরাতের দুই ক্লাবের সংঘর্ষ। মারপিঠ, চিৎকার–চেচামিচিতে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি চত্বর। দুষ্কৃতী লেলিয়ে দিয়ে একটি ক্লাবের চার সদস্যকে বেদম মারধর করল আর এক ক্লাব বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় আক্রান্তরা কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মাঝরাতেই অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে থানা ঘেরাও হয়। পরিস্থিতিকে ঘিরে উত্তপ্ত ঠনঠনিয়া চত্বর। রবিবার সকাল পর্যন্ত এই ঘটনায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। কেউ গ্রেফতারও হয়নি।

ঠিক কী ঘটেছিল এলাকায়?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি চত্বরে সরস্বতী পুজো হয়েছিল। দিনে কিছু টের পাওয়া না গেলেও মাঝরাতে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এই এলাকা। পুজোর পর সেখানে বসেছিলেন ঠনঠনিয়ার বিবেকানন্দ স্পোর্টিং ক্লাবের সদস্যরা। তখন সেখানে প্রায় ৪০ জনের একটি দল এসে তাদের উপর চড়াও হয়। বেধড়ক মারধর করতে থাকে। পাশের ক্লাব দুষ্কৃতী লেলিয়ে দিয়ে হামলা করেছে বলে অভিযোগ স্পোর্টিং ক্লাবের সদস্যদের।

জানা গিয়েছে, এই হামলা চালিয়েছে প্রিয়াঙ্কু পাণ্ডের অনুগামীরা। ক্লাব সদস্যদের অভিযোগ তেমনই। বিবেকানন্দ স্পোর্টিং ক্লাবের চার সদস্যকে রাস্তায় ফেলে কিল–চড়–ঘুষি–লাথি মারা হয়। তাতে তাঁরা মারাত্মক জখম হন। তখন চিৎকার করতে থাকলে বেরিয়ে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এই দেখে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই বিষয়ে খবর পেলেও কোনও লিখিত অভিযোগ জমা পড়েনি। তবে আশা করছি ক্লাবের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ জমা পড়বে। তবে খোঁজখবর নেওয়া শুরু হয়েছে। কারা, কেন এমন হামলা চালালো তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই চার ক্লাব সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তাঁদের বয়ান পেলেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে।

বন্ধ করুন