বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে 'গলদ', নথি খতিয়ে দেখার নির্দেশ হাইকোর্টের
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে 'গলদ', নথি খতিয়ে দেখার নির্দেশ হাইকোর্টের

  • পর্ষদের পক্ষ থেকে আইনজীবী লক্ষ্মী কুমার গুপ্ত জানান, প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগের জন্য সুপারিশ প্রক্রিয়া চলে। জেলা নিয়োগ করে।

রাজ্যের ৪২ হাজার শিক্ষক–শিক্ষিকাদের নিয়োগ সংক্রান্ত নথি মামলাকারীকে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। আগামী ১৬ নভেম্বরের মধ্যে নথি খতিয়ে দেখে রিপোর্ট জমা দিতে হবে। ইতিমধ্যে মামলাকারীর তরফে দাবি করা হয়, চলতি বছরে বেশ কয়েকজন শিক্ষক–শিক্ষিকা নিয়োগ হয়েছে। সেই নিয়োগ সংক্রান্ত নথিও খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।

গত বুধবার নিয়োগ সংক্রান্ত এই নথি মুখবন্ধ খামে জমা দিতে যায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। তাদের তরফে জেলাভিত্তিক রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু মুখবন্ধ খামে রিপোর্ট জমা নিতে অস্বীকার করে ডিভিশন বেঞ্চ। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের এই আর্জি প্রসঙ্গে হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, তথ্য লুকোনোর কিছু নেই। ফলে মুখবন্ধ খামে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। উল্লেখ্য, উপযুক্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা ছাড়াই ২০১৬ সালের টেটে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ইতিমধ্যে পর্ষদের পক্ষ থেকে আইনজীবী লক্ষ্মী কুমার গুপ্ত জানান, প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগের জন্য সুপারিশ প্রক্রিয়া চলে। জেলা নিয়োগ করে। সেক্ষেত্রে বোর্ডের মাধ্যমে নিয়োগ হয় না। দক্ষিণ দিনাজপুরে এক শিক্ষক উপযুক্ত যোগ্যতা না থাকা সত্বেও নিয়োগ হয়েছেন। ১২ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ ইতিমধ্যে সামনে এসেছে। একের পর এক এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই এই বিষয়ে জনস্বাস্থ্য মামলা দায়ের করেন এক মামলাকারী। বিষয়টি এখন আদালতে বিচারাধীন।

 

বন্ধ করুন