বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > হিংসায় উদ্বিগ্ন আদালত, রাজ্যের কাছে রিপোর্ট তলব প্রধান বিচারপতির
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

হিংসায় উদ্বিগ্ন আদালত, রাজ্যের কাছে রিপোর্ট তলব প্রধান বিচারপতির

  • এদিনের শুনানিতে, হাওড়া, ডায়মন্ড হারবার, বেথুয়াডহরী, রেজিনগরসহ বিভিন্ন জায়গার ছবি আদালতে দেখান মামলাকারীর আইনজীবীরা। পার্ক সার্কাসের ছবি দেখিয়ে বলেন, ‘লোক দেখে পুলিশ পালিয়ে গেছে।

রাজ্যে লাগাতার হিংসা মোকাবিলায় প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সাহায্য নেওয়ার পরামর্শ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। সঙ্গে ১৫ জুনের মধ্যে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। সোমবার এই নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ।

হাওড়াসহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় মুসলিম সংগঠনগুলির তাণ্ডবে প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করে দায়ের হয়েছিল মামলা। সেই মামলার শুনানিতে রাজ্যে সেনাবাহিনী মোতায়েনের আবেদন জানানো হয়েছিল। আবেদনকারীদের দাবি, তাণ্ডবকারীদের নিরস্ত করতে কোনও পদক্ষেপ করেনি পুলিশ। তারা নীরব দর্শকের ভূমিকায় ছিল।

এদিনের শুনানিতে, হাওড়া, ডায়মন্ড হারবার, বেথুয়াডহরী, রেজিনগরসহ বিভিন্ন জায়গার ছবি আদালতে দেখান মামলাকারীর আইনজীবীরা। পার্ক সার্কাসের ছবি দেখিয়ে বলেন, ‘লোক দেখে পুলিশ পালিয়ে গেছে। রাজ্য পরিস্থিতি সামলাতে না পারলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে দায়িত্ব দেওয়া হোক।’

সঙ্গে মামলাকারীদের আরও দাবি, উলুবেড়িয়ায় ৬ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধে কোনও মামলা রুজু করেনি পুলিশ। এমনকী সেদিন সাধারণ মানুষ পুলিশের কাছে সাহায্য চাইতে গেলে তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল বলেন, ‘আমি নিজে দেখেছি কী ঘটেছে। মুখ্যমন্ত্রী দার্জিলিংয়ে আটকে পড়লে সেনা ডাকতে পারেন, তাহলে এখানে নয় কেন? একজন দায়িত্ববান মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, বিজেপি শাসিত রাজ্যে অবরোধ করুন?’

গোটা ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রধান বিচারপতি অ্যাডভোকেট জেনারেলকে বলেন, ‘ভিডিয়ো দেখেছেন? তাহলে অভিযুক্তদের ধরতে সমস্যা কোথায়? ব্যক্তিগত সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে। সেটা উদ্ধার করবেন কী করে? ১৫ দিনের মধ্যে এব্যাপারে রাজ্যের রিপোর্ট চাই।’

 

বন্ধ করুন