বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Hindu Mahasabha: ‘টাকায় গান্ধীর বদলে নেতাজির ছবি বসানো উচিত’, মন্তব্যে ফের বিতর্কে হিন্দু মহাসভা

Hindu Mahasabha: ‘টাকায় গান্ধীর বদলে নেতাজির ছবি বসানো উচিত’, মন্তব্যে ফের বিতর্কে হিন্দু মহাসভা

চন্দ্রচূড় গোস্বামী।

কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী বলেন, ‘গান্ধীজীকে কারা হত্যা করেছিল তা সকলেই জানে। এভাবে গান্ধীজীর নীতি আদর্শকে মুছে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এর জন্য বিজেপি এবং তাদের সংঘ পরিবারকে জবাবদিহি করতে হবে।’

দুর্গাপুজোয় গান্ধীজীর আদলে অসুর বানিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিল অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভা। এবার টাকা থেকেও মহাত্মা গান্ধীর ছবি সরিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়ে বিতর্কে জড়ালো হিন্দুত্ববাদী এই সংগঠন। সংগঠনের পক্ষ থেকে এই দাবি উঠতেই সমালোচনায় সরব হয়েছে কংগ্রেস।

হিন্দু মহাসভার পুজো নিয়ে নিন্দা সুকান্তর, ‘BJP শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে চাইছে’ কুণাল

সংগঠনের পশ্চিমবঙ্গ শাখার কার্যনির্বাহী সভাপতি চন্দ্রচূড় গোস্বামী বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর অনেক বড় ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু, তাকে সেভাবে সম্মান দেওয়া হয়নি। তাই তাকে সম্মান দিতে গেলে টাকা থেকে মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীর ছবি সরিয়ে নেতাজির ছবি বসাতে হবে।’ সংগঠনের নেতার এই মন্তব্যের পরেই আক্রমণ করেছে কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী বলেন, ‘গান্ধীজীকে কারা হত্যা করেছিল তা সকলেই জানে। এভাবে গান্ধীজীর নীতি আদর্শকে মুছে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এরজন্য বিজেপি এবং তাদের সংঘ পরিবারকে জবাবদিহি করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, রুবি পার্কের দুর্গাপুজোয় গান্ধীজীর আদলে অসুরের রূপ দেওয়ার পরেই বিতর্কে জড়িয়েছিল হিন্দু মহাসভা। এরপরে পুলিশ অসুরের মূর্তিতে চুল এবং গোঁফ লাগিয়ে দেয়। তারপরে তীব্র প্রতিবাদ জানায় কংগ্রেস। দলের কর্মী সমর্থকরা কসবা থানায় বিক্ষোভ করেন। তারপরও নিজের অবস্থানে অনড় ছিলেন চন্দ্রচূড়। তিনি বলেছিলেন, ‘মোহনদাস কর্মচাঁদ গান্ধীকে জাতির নেতা বলা হয় ঠিকই, কিন্তু আমরা তা মানিনা। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নাম ব্রিটিশদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য যে মানুষটি জড়িত আমরা তাকে জাতির জনক বলে মানি না।’ এরপরেই উঠেছিল সমালোচনার ঝড়। সেই রেশ কাটার পর আবার নতুন করে বিতর্কে জড়ালো হিন্দু মহাসভা।

বন্ধ করুন