বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > প্রমাণ চেয়েছিলেন শুভেন্দুর 'সততার', 'জবাবে' BJP থেকে বহিষ্কৃত হলেন জেলা সভাপতি
সুরজিৎ সাহা
সুরজিৎ সাহা

প্রমাণ চেয়েছিলেন শুভেন্দুর 'সততার', 'জবাবে' BJP থেকে বহিষ্কৃত হলেন জেলা সভাপতি

হাওড়া সদরের জেলা সভাপতির এভাবে প্রকাশ্যে অভিযোগ তোলার পরই তাঁকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কলকাতা ও হাওড়া পুরভোটের আগে বিজেপির মধ্যে অন্তর্কলহ প্রকাশ্যে এল। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করে হাওড়া সদরের বিজেপি সভাপতি সুরজিৎ সাহা স্পষ্ট জানান, ‘‌শুভেন্দুবাবু তো ৬ মাস আগে বিজেপিতে এসেছেন। আপনাকে নারদায় দেখা গিয়েছে টাকা হাতে নিতে। বিজেপির কোনও নেতাকে টাকা নিতে দেখা যায়নি। আপনাকে প্রমাণ করতে হবে, আপনি কত বড় সৎ?’‌ উল্লেখ্য, সম্প্রতি শুভেন্দুবাবু হাওড়া সদরে বিজেপির হারের পিছনে বিজেপি প্রার্থীর সঙ্গে তৃণমূল নেতা অরূপ রায়ের যোগসাজশের অভিযোগ তুলেছেন। সেই অভিযোগের কিছুক্ষণ পরই সুরজিৎকে বহিষ্কৃত করেছে বিজেপি।

কলকাতা ও হাওড়ায় পুরনির্বাচনের আগে বিজেপির তরফে একটি সিলেকশন কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি গঠন নিয়েই বিরোধী দলনেতা বিরুদ্ধে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন হাওড়া সদরের বিজেপি সভাপতি। এদিন তিনি জানান, ‘‌এটা ভারতীয় জনতা পার্টির জনতা তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি তৈরি হয়েছে। আমরা তৃণমূলের বি টিমের অধীনে কাজ করব না। শুভেন্দুবাবু নিজের টিম তৈরি করেছেন। যিনি নিজের বুথ জিততে পারেন না, সেই রথীন চক্রবর্তীকে চেয়ারম্যান করা হয়েছে। আমি এর বিরোধিতা করছি। যদি চেয়ারম্যান করতে হয়, তাহলে বিজেপির পুরনো কার্যকর্তাদের চেয়ারম্যান করতে হবে। এখানে রবীন ভট্টাচার্য, সঞ্জয় সিং-সহ অনেক পুরনো কার্যকর্তা আছেন, তাঁদের মধ্যে থেকে চেয়ারম্যান করতে হবে। শুভেন্দু যদি প্রকৃত কার্যকর্তা হন, তাহলে যে অভিযোগ করেছেন, তার প্রমাণ দিতে হবে।’‌

এদিন হাওড়া সদরের জেলা সভাপতির এভাবে প্রকাশ্যে অভিযোগ তোলার পরই তাঁকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। দলের শৃঙ্খলা না মেনে যেভাবে তিনি শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন, তারই পরিণতি স্বরূপ সুরজিৎ সাহাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন